Finance News

Scholarship: বাম্পার লটারি পেতে চলেছেন পড়ুয়ারা, ৪৮০০০ টাকার সঙ্গে হাতে মিলবে ল্যাপটপ

Advertisements

অর্থের অভাবে অনেক সময়ই মেধাবী ছাত্র ছাত্রীরা পড়াশোনা নিয়ে এগোতে পারে না। এমন অনেকেই আছেন যাদের পারিবারিক আর্থিক অবস্থার কারণে মাধ্যমিক পর্যন্ত পড়াশোনা করেই বাধ্য হয়ে ছেড়ে দিতে হয়। উচ্চমাধ্যমিক বা কলেজে বিজ্ঞান বিষয়ক পড়াশোনা করতে পারেন না তারা। তাদের জন্যই এবার এল এক দারুণ খবর। জগদীশচন্দ্র বসু সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ (Scholarship) এই সব মেধাবী ছাত্র ছাত্রীদের পড়াশোনার ক্ষেত্রে আর্থিক সহায়তা দেয়। সঙ্গে থাকে আরো সুযোগ সুবিধা।

কী এই স্কলারশিপ?

রাজ্যে যে সমস্ত দরিদ্র অথচ মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা টাকার অভাবে বিজ্ঞান বিষয়ক পড়াশোনা করতে পারে না, তাদের উৎসাহ দিতে জগদীশচন্দ্র বসু সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ চালু করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিজ্ঞান প্রযুক্তি ও জৈব প্রযুক্তি দপ্তরের তরফে এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়ে থাকে। জুনিয়র স্কলারশিপ এবং সিনিয়র স্কলারশিপ এই দুই ভাগে ভাগ রয়েছে এই স্কলারশিপটি।

 

Scholarship: বাম্পার লটারি পেতে চলেছেন পড়ুয়ারা, ৪৮০০০ টাকার সঙ্গে হাতে মিলবে ল্যাপটপ

স্কলারশিপের সুবিধা

এই স্কলারশিপে সমস্ত যোগ্য ছাত্রছাত্রীদের মেধা বৃত্তি এবং বই কেনার আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সেরা দশ জন ছাত্র এবং ছাত্রীদের মেধাবৃত্তি ছাড়াও দেওয়া হয় একটি করে ল্যাপটপ। যারা সিনিয়র স্কলার তারা পাবেন মাসে ৪০০০ টাকা এবং বই কেনার জন্য বার্ষিক ৫০০০ টাকা। উচ্চমাধ্যমিক স্তরের স্কলারশিপ গ্রাহকদের মাসে ১২৫০ টাকা এবং বই কেনার জন্য বার্ষিক এককালীন ২৫০০ টাকা দেওয়া হবে।

আবেদনের সময়সীমা

জগদীশচন্দ্র বসু ন্যাশনাল সায়েন্স ট্যালেন্ট স্কলারশিপ এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইন আবেদন করতে হবে। ১ লা জুন থেকে শুরু হয়েছে আবেদন প্রক্রিয়া। শেষ তারিখ ৩১ জুলাই। লিখিত পরীক্ষা হবে ১৮ অগাস্ট।

Nirajana Nag

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই