whatsapp channel

আপনার বসার ঘরের শোভা বাড়াবে যে পাঁচটি ইনডোর প্ল্যান্ট

পরিবেশ দূষণ ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। পৃথিবীর পুরো পরিবেশকে পাল্টে ফেলা আপনার একার পক্ষে সম্ভব না। কিন্তু যে বাড়িতে থাকছেন একটু একটু করে সেই বাড়ি দিয়ে শুরু করতে পারেন। আপনি করলে…

Avatar

HoopHaap Digital Media

পরিবেশ দূষণ ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। পৃথিবীর পুরো পরিবেশকে পাল্টে ফেলা আপনার একার পক্ষে সম্ভব না। কিন্তু যে বাড়িতে থাকছেন একটু একটু করে সেই বাড়ি দিয়ে শুরু করতে পারেন। আপনি করলে আপনার দেখাদেখি আর পাঁচটা মানুষ করতে ইচ্ছা প্রকাশ করবে। বাড়িতে ঢুকতেই প্রথমে যে ঘরটি আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সেটি হল বসার ঘর। বসার ঘর অনেকেই অনেক ভাবে সাজিয়ে থাকেন। নামি দামি সোফা সেট, নামিদামি ফ্লাওয়ার ভাস প্লাস্টিকের ফুল দিয়ে গোটা বাড়ি সাজাতে চান। কিন্তু এত টাকা খরচ করে শুধু শুধু নামী দামী জিনিস দিয়ে কেন ঘর সাজাবেন! এই ভাবনা প্রত্যেককে ভাবতে হবে। অল্প টাকা খরচ করে যদি আপনার সাজানো ঘর থেকে আপনি এবং গোটা পরিবেশ কিছুটা লাভবান হতে পারে সেই দিকেই যদি নজর দেয় তাহলে পৃথিবীটা হয়তো একটু একটু করে সুস্থ হতে পারে। ঘর সাজানোর জন্য জ্যান্ত গাছকে বেছে নিন। ঘরের কোনায়, দেওয়ালে, টেবিলের উপর, সোফার পাশে বা জানালার পাশে সুন্দর করে বসার ঘর সাজাতে পারেন গাছ দিয়ে। বসার ঘর সাজানোর জন্য আপনাকে ইনডোর প্ল্যান্ট বেছে নিতে হবে। কারণ বেশিরভাগ বসার ঘরেই কড়া সূর্যের আলো আসে না।

কেন ঘর সাজানোর জন্য গাছকেই বেছে নেবেন? ঘর সাজানোর জন্য তো কত কিছুই না আছে কিন্তু হঠাৎ করি কেন গাছ কেই বেছে নেবেন এ প্রশ্ন আপনার মধ্যে ঘুরপাক খাবে। যে গাছ গুলো বেছে নেবেন সেই গাছ গুলো বাতাস থেকে কার্বন-ডাই-অক্সাইড নিয়ে অক্সিজেন ত্যাগ করে, এমন অনেক গাছ আছে যেগুলি রাত্রিবেলা অক্সিজেন ত্যাগ করে। যার ফলে কৃত্রিম এয়ার পিউরিফাই মেশিন ছাড়াই আপনার ঘরের পরিবেশ একেবারে সতেজ থাকবে। বিশেষ করে আপনার বাড়িতে যদি বৃদ্ধ এবং শিশু থাকে তাহলে এই ধরনের গাছ আপনার বাড়ির জন্য ভীষণ উপকারী। বসার ঘরের জন্য ছোট জায়গায় উপযুক্ত গাছ আপনাকে বেছে নিতে হবে। সব সময় যে নামিদামি গাছ কিনতে হবে এমন নয়। ছোটখাটো মানিপ্ল্যান্ট দিয়ে সুন্দর করে ঘর সাজাতে পারেন।

১) পিস লিলি: ঘর সাজানোর জন্য প্রথমেই বেছে নিতে পারেন পিস লিলিকে। চকচকে পাতা, এবং চামচের আকারের সাদা ফুল আপনার ঘর থেকে সৌন্দর্য ভরিয়ে দেবে। ফুলটি ফোটার জন্য উজ্জ্বল আলোর প্রয়োজন হয়। তাই আপনার বসার ঘরের জানলা দিয়ে যেখানে একটি উজ্জ্বল আলো আসছে সেই জায়গায় গাছটি রাখতে পারেন।

২) ফেলেনোপসিস: এই গাছটি একটি অর্কিড জাতীয় গাছ। অন্যান্য গাছে তুলনায় এই গাছটি তুলনামূলক শক্ত। এই গাছে একবার ফুল ধরলে সারা মাস ধরে থাকে। এই গাছও উজ্জ্বল আলো পছন্দ করে। সপ্তাহে একদিন জল দিলেই এই গাছ সুন্দরভাবে বেঁচে থাকতে পারে।

৩) পথোস: এই গাছটি একটি লতানো উদ্ভিদ। খুব কম যত্নেই সুন্দর ভাবে বেড়ে উঠবে এই গাছ। মাটিতে কোন ছোট টবের মধ্যে গাছটি রেখে যদি বইয়ের তাকে সুন্দর করে তুলে দিতে পারেন তাহলে আপনার বসার ঘরকে এক অন্য রকম সৌন্দর্য ভরিয়ে দেবে এই গাছ।

৪) স্নেক প্ল্যান্ট: যারা গাছ পছন্দ করেন এবং গাছ দিয়ে ঘর সাজাতে চান অবশ্যই বসার ঘরে, শোওয়ার ঘরে, ব্যালকনিতে স্নেক প্ল্যান্ট রাখুন। এই গাছ ভীষণ ভালো এয়ার পিউরিফায়ার হিসেবে কাজ করে। কম আলোতে এই গাছ সুন্দর বেড়ে ওঠে। তবে এই গাছে খুব বেশি জল দেবেন না। উপরের মাটি শুকিয়ে গেলে তবেই জল দেবেন।

৫) স্পাইডার প্ল্যান্ট: বড় বড় আকারের লম্বা লম্বা পাতা দেখতে অনেকটা মাকড়সার মতো তাই বোধহয় এরূপ নামকরণ। মাকড়সার মতন দেখতে হলেও এই গাছটি কিন্তু বেশ উপকারী গাছ। একটি ঝোলানো পাত্রের মধ্যে গাছটি বসিয়ে দিয়ে ব্যালকনিতে, বসার ঘরের জানলায় সহজে লাগিয়ে দিতে পারেন। নতুন গাছ তৈরি করা ভীষণ সহজ। একটি পাতা ছিঁড়ে নিয়ে মাটির মধ্যে লাগিয়ে দিলেই সেখান থেকে তৈরি হয়ে যাবে ছোট গাছ।

এভাবে একবার টাকা পয়সা খরচ করে নার্সারি থেকে গাছ কিনে এনে খুব সহজে বাড়িতেই বানিয়ে নিতে পারেন এই গাছের ছোট ছোট চারা। কাউকে উপহার দেওয়ার জন্যও বেছে নিতে পারেন গাছ।

Avatar

Leave a Comment