whatsapp channel

Kolkata Puja: লম্বা লাইন দিয়ে প্যান্ডেল দেখার দিন শেষ, বাড়িতে বসে দেখে ফেলুন শ্রীভূমির পুজো

কলকাতার সেরা সেরা পুজোগুলোর মধ্যে সবার আগে যে পুজোর নাম উঠে আসে সেটি হল শ্রীভূমি। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে নানান রকম থিমের উপরে পুজো করে সব্বাইকে একেবারে তাক লাগিয়ে…

Avatar

Shreya Chatterjee

কলকাতার সেরা সেরা পুজোগুলোর মধ্যে সবার আগে যে পুজোর নাম উঠে আসে সেটি হল শ্রীভূমি। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে নানান রকম থিমের উপরে পুজো করে সব্বাইকে একেবারে তাক লাগিয়ে দিচ্ছে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব। যাকেই জিজ্ঞাসা করবেন কলকাতার পুজোর মধ্যে কোনটি সেরা তার মুখেই কিন্তু আপনি এই একটা নামই খুঁজে পাবেন। যদিও বাকিরা কোন অংশে কম যাচ্ছে না, তবে যেভাবে মানুষ মহালয়ার দিন থেকে পূজো দেখা শুরু করেছে, তাতে করে আর আলাদা করে মানুষকে বুঝিয়ে দিতে হচ্ছে না, যে শ্রীভূমিই সেরা।

উদ্বোধনের পর থেকেই রীতিমতন কাতারে কাতারে মানুষের ভিড় জমছে। এখানে অষ্টমী, নবমীতে কি করে এত ভিড় সামলাবেন তাই পুলিশ।প্রশাসন বুঝতে পারছেন না। কখনো বাহুবলি, কখনো বুর্জ খালিফা, কখনো আবার ভাটিকান সিটি, প্রত্যেকবার নিত্য নতুন থিম নিয়ে হাজির হচ্ছে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব। তবে বৃদ্ধ বা শিশুদের নিয়ে যতটা পারবেন কম যাবেন, কারণ এতটা ভিড় হচ্ছে যে অনেক মানুষ ওখানে গিয়ে অসুস্থ হচ্ছেন, তাইতো আজকে আমরা যারা যেতে পারছেন না, তাদের জন্য বাড়িতে বসে কিভাবে আপনি শ্রীভূমি ঠাকুর দেখবেন তারই ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

কিন্তু যে ডিজনিল্যান্ডকে নিয়ে এতটা মানুষের মধ্যে মাতামাতি সে ডিজনিল্যান্ড কবে তৈরি হলো তা জানেন কি? প্রায় ৭০ বছর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় ডিজনিল্যান্ড তৈরি করেন ওয়াল্ট ডিজনি। প্রায় ১৬০ একর জমির ওপর প্রায় কয়েক মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করে ১৯৫৫ সালে গড়ে তোলা হয়েছিল এই বিনোদন পার্ক। ডিজনি একদিন বাড়ির সামনে একটি পার্কের বেঞ্চে বসে বসে বই পড়ছিলেন তার সেখানেই অনেক শিশুরা তাদের মায়েদের কাছে রোলার কোস্টার চড়ার জন্য ভীষণ বায়না করছিল। কিন্তু সেই সমস্ত রোলার কোস্টার বাচ্চাদের চড়ার কোন অধিকার ছিল না। এমনটা দেখে তার মনে হয় যেখানে শিশুরা খেলতে পারবে এমন একটা পার্ক তিনি বানাবেন। আর তারপরেই তৈরি হয়ে যায় এমন ঐতিহাসিক ডিজনিল্যান্ড।

তবে এবারে খোদ কলকাতায় সেই ডিজনিল্যান্ড তৈরি হয়েছে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবে। এখানে শুধুমাত্র সাধারণ মানুষের ঢল নেমেছে এমনটা নয়, সেলিব্রেটিদেরও শুরু হয়ে গেছে আনাগোনা। দেব, বিদ্যা বালান থেকে শুরু করে রোনাল্ডো কে আসেননি এইখানে? সব মিলিয়ে যেন একেবারে চাঁদের হাট বসেছে।

বিধাননগরের বিধায়ক তথা দমকলমন্ত্রী সুজিত বসুর পুজো নামে পরিচিত শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের পুজো৷ প্রতিবছর যেমন নিত্য নতুন প্যান্ডেল থাকে, ঠিক তেমনি আকর্ষণীয় থাকে এখানকার দেবী প্রতিমা। সুন্দর মুখশ্রী থেকে সাজসজ্জা সবেতেই রয়েছে একটা স্পেশাল টাচ। এখানকার দেবী প্রতিমার দিকে তাকালে যেন চোখ ঝলসে উঠবে, সোনা আর হীরার অলংকারের জন্য। প্রতি বছর দর্শকদের কাছে প্রতিমার এমন সাজসজ্জা বাড়তি পাওনা থাকে।

মণ্ডপ আর প্রতিমার পাশাপাশি এই শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের আরেকটি অন্যতম আকর্ষণ হল আলোকসজ্জা। কিন্তু সম্ভবত কিছু সময় আগেই জানানো হয়েছে, যে আলোকসজ্জা কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ করা হয়েছে, কারণ পুলিশ প্রশাসন মনে করছেন এই আলোকসজ্জা দেখার জন্য মানুষ অনেক বেশি সময় মন্ডপের সামনে অপেক্ষা করছেন। তার জন্য ভিড় সামলানো দায় হয়ে পড়েছে। এর জন্য খানিকটা মুখ ভার দর্শনার্থীদের। কিন্তু কি করা যাবে হয়তো পরে ভিড় সামলে আবারও আলোকসজ্জার কাজ শুরু হবে। সবশেষে একটা কথা বলতে হয়, এত লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে মন্ডপ এবং প্রতিমা সাজানোর পরে যখন দেখা যায়, তা দেখার জন্য দূর দূরান্ত থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষের আগমন হচ্ছে তখন কিন্তু শিল্পীর কাজ সত্যি সার্থক।

Avatar

আমি শ্রেয়া চ্যাটার্জী। বর্তমানে Hoophaap-এর লেখিকা। লাইফস্টাইল এবং বিনোদনমূলক লেখা আপনাদের কাছে তুলে ধরি। অনলাইনের সুবাদে রান্নার রেসিপি, রূপচর্চা, কুকিং টিপস, বেড়ানোর জায়গার সন্ধান এগুলো যেমন জানা প্রয়োজন, ঠিক তেমনি মনোরঞ্জনের জন্য শর্টফিল্ম, সিরিজ এগুলোরও সমান গুরুত্ব। সমস্ত খবরকেই লেখার মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করি। অনেক ধন্যবাদ সকলক