Hoop Life

Lifestyle: বাড়ির এই কোণায় ভুলেও রাখবেন না ডাস্টবিন, অর্থনৈতিক সংকট গ্রাস করবে

ভারতের প্রাচীন শাস্ত্রের মধ্যে অন্যতম হল বাস্তুশাস্ত্র। শুধু ভারতে নয়, গোটা এশিয়া ভূখণ্ডে এখনো বহুলভাবে প্রচলিত এই শাস্ত্র। বাস্তুশাস্ত্রে মূলত গৃহসজ্জা এবং তার বিভিন্ন রীতিনীতি নিয়ে আলোচনা করা হয়। কোন জিনিস বাড়ির কোথায় রাখলে বাড়ির উপর ইতিবাচক শক্তির প্রভাব বৃদ্ধি পাবে বা কোন জিনিস কোন দিকে রাখলে তার প্রভাব হবে মারাত্মক, তা বিস্তারিত আলোচনা করা হয় বাস্তুশাস্ত্রে। জীবনে এর জীবন্ত প্রভাব বর্তমান। তাই অনেকেই মেনে চলে বাস্তুশাস্ত্র।

আমাদের অনেকের গৃহসজ্জা নিয়ম মেনে করে থাকলেও বাড়ির নোংরা ফেলার্স স্থান বা ডাস্টবিন আমরা ফাঁকা বা পরিত্যক্ত কোণায় রেখে দিই। কিন্তু এখানেই হতে পারে মারাত্মক ভুল। বাড়ির সব জায়গায় ডাস্টবিন রাখা যায়না। কিছু কিছু দিকে ডাস্টবিন রাখলে বাড়ির উপর ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। এই প্রতিবেদনে এমনই কিছু নিয়মের বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

■ বাড়ির যেখানে ডাস্টবিন রাখবেন না:

(১) উত্তর-পূর্ব দিক: সবসময় উত্তর পূর্ব দিককে শুভদিক বলে মনে করা হয় বাস্তুশাস্ত্রে। এই বিশেষ দিকে দেবতার বসবাস হয় বলে প্রচলিত ধারণা রয়েছে হিন্দু ধর্মে। তাই এদিকে কখনোই ডাস্টবিন রাখা কিংবা এই কোণায় আবর্জনা ফেলা উচিত নয়।

(২) দরজার পাশে: বাড়ির মূল দরজা দিয়ে সবসময় যাতায়াত করি আমরা। বাস্তুবিদদের মতে দরজা দিয়ে মা লক্ষ্মীর আগমনও ঘটে। তাই দরজার কাছাকাছি ময়লা ফেলা অনুচিত।

(৩) রাস্তার পাশে: রাস্তাকে পরিষ্কার রাখার নিদান দেয় বাস্তুশাস্ত্র। তাই রাস্তার উপর বা রাস্তার পাশে আবর্জনা ফেলা একদমই উচিত নয়।

(৪) ঠাকুরঘরের কাছাকাছি: ঠাকুরঘর বা মন্দিরের কাছাকাছি ডাস্টবিন রাখা উচিত নয়। এতে ঘর অমঙ্গল হতে পারে।

■ কোথায় ডাস্টবিন রাখবেন: সবসময় বাড়ির উত্তর পশ্চিম বা দক্ষিণ পশ্চিম দিকে ডাস্টবিন রাখা উচিত। বাড়ির বাইরেও এই দুটি দিকে ময়লা বা আবর্জনা ফেলতে পারেন। এতে ঘরে লক্ষ্মীর কৃপা বজায় থাকবে।

Disclaimer: প্রতিবেদনটি তথ্য ও অনুমানের উপর লিখিত। বাস্তব জীবনে ব্যক্তিবিশেষে এর প্রভাব ভিন্ন হতে পারে।