whatsapp channel

Bhuban Badyakar: হারিয়ে গেলেন ভাইরাল ‘বাদামকাকু’, চরম কষ্টে কাটছে দিন

সোশ্যাল মিডিয়া হল এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যা দুনিয়াকে এনে দিয়েছে মানুষের হাতের মুঠোয়। এই মাধ্যম থেকেই অনেক গুপ্ত প্রতিভা, যা এতদিন সুপ্ত অবস্থায় ছিল, তা পেয়েছে প্রচার, অনেকেই সুযোগ পেয়েছেন…

Avatar

Debaprasad Mukherjee

সোশ্যাল মিডিয়া হল এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যা দুনিয়াকে এনে দিয়েছে মানুষের হাতের মুঠোয়। এই মাধ্যম থেকেই অনেক গুপ্ত প্রতিভা, যা এতদিন সুপ্ত অবস্থায় ছিল, তা পেয়েছে প্রচার, অনেকেই সুযোগ পেয়েছেন যথাযোগ্য স্থানে। অনেকেই আবার এই সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এখন স্টার হয়ে উঠেছেন, অনেককে ঘিরে তৈরি হয়েছে বিশ্বজোড়া ‘সেনসেশন’। আর এমনই একটি নাম, যা সোশ্যাল মিডিয়া থেকে উঠে এসে পৌঁছে গেছে বিশ্বব্যপী, তা হল ভুবন বাদ্যকর (Bhuban Badyakar), ওরফে ‘বাদাম কাকু’।

বীরভূমের দুবরাজপুরের এই বাদাম বিক্রেতা একটা সময় গান গেয়ে গেয়ে বাদাম বিক্রি করতেন। কিন্তু তার ভাগ্য খুলে যায় যখন তার গাওয়া গানের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। আগুনের মতো ভাইরাল হয়ে যায় গানটি। যুব সমাজের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে ‘বাদাম কাকু’র গাওয়া এই অরিজিনাল গান। দেশ বিদেশের সব বিখ্যাত মানুষজন এই গানের তালে কোমর দুলিয়ে রিলসও বানিয়েছেন দেদার। এককথায় গ্রামের শিল্পী ভূবন বাদ্যকরের নাম ছড়িয়ে পড়ে বিদেশ বিভুঁইয়ে। ডাক আসে গান রেকর্ড করার, রাতারাতি কুঁড়েঘরের ভুবন গিয়ে সংসার পাতেন বিশাল এক অট্টালিকায়। কিন্তু আচমকা এই শিল্পী হারিয়ে গেলেন কোথায়? আর তাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা যায়না কেন?

সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার মুখোমুখি হয়ে নিজের দুরবস্থা নিয়ে অকপটে বললেন ‘বাদাম কাকু’। অকপটে বললেন তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া প্রতারণার কথাও। এই সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন যে চক্রান্ত করে এক ব্যক্তি তার ‘বাদাম বাদাম’ গানের কপিরাইট হাতিয়ে নিয়েছে। তার কথায়, “যখন গান গাইছি, বাদাম উচ্চারণ করলেই কপিরাইট লাগিয়ে দিচ্ছে আর গান বন্ধ করে দিচ্ছে। কোনও জায়গায় গান গাইলেই এই সমস্যা। চক্রান্ত করা হয়েছে আমার বিরুদ্ধে।” নিজের জেলা বীরভূমের একটি সংস্থা ও তার মালিকের দিকে আঙুল তুলে ভূবন বাদ্যকর বলেন, “আইপিআরএসের নাম করে গান নিয়ে নিয়েছে। আমি তো লেখাপড়া জানি না, ইংরাজি পড়তে জানি না। আমাকে এখন বলছে আমি তোমার গান আমি কিনে নিয়েছি। ফোন করলে ফোনও তোলে না এখন।”

এই সাক্ষাৎকারে গায়ক জানান যে তিনি ইংরেজি লিখতে, পড়তে বা বুঝতে পারেন না বলেই তার সঙ্গী এই চক্রান্ত ও প্রতারণা করা হয়েছে। এই বিষয়ে তিনি ওই ব্যক্তি ও সংস্থার বিরূদ্ধে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন বলেও জানান এই সাক্ষাৎকারে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Bhuban Badyakar (@bhuban_badyakar)

Avatar

Hoophaap-এর সম্পাদক দেবপ্রসাদ বিগত কয়েক বছর যাবৎ সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ার হাত ধরেই সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি। রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা, লাইফস্টাইল, প্রযুক্তি প্রভৃতি সব ধরণের খবরের উপস্থাপনার কাজে যথেষ্ট সাবলীল। নিউজ ডেস্ক ছাড়াও রয়েছে ভিডিও এডিটিং এবং ক্যামেরার পিছনে বিচিত্র অভিজ্ঞতা