whatsapp channel

Lata Mangeshkar: খুব শীঘ্রই লতাজির বায়োপিক বানানোর পরিকল্পনা, এগিয়ে এলেন তিন পরিচালক

গত রবিবার চলে গিয়েছেন বাগদেবীর বরপুত্রী লতা মঙ্গেশকর (Lata Mangeshkar)। শোকস্তব্ধ আসমুদ্রহিমাচল। পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে বলিউডে লতা তৈরি করেছিলেন তাঁর সুরের আবহ। বলিউডের এমন কোনো নায়িকা ছিলেন না, যাঁর লিপে গান গাননি লতা। মধুবালা (Madhubala) তো কোনো ফিল্মের চুক্তি স্বাক্ষর করার আগে তাঁর অন্যতম শর্ত থাকত, তাঁর লিপে গান গাইবেন লতাজী।

Avatar

HoopHaap Digital Media

গত রবিবার চলে গিয়েছেন বাগদেবীর বরপুত্রী লতা মঙ্গেশকর (Lata Mangeshkar)। শোকস্তব্ধ আসমুদ্রহিমাচল। পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে বলিউডে লতা তৈরি করেছিলেন তাঁর সুরের আবহ। বলিউডের এমন কোনো নায়িকা ছিলেন না, যাঁর লিপে গান গাননি লতা। মধুবালা (Madhubala) তো কোনো ফিল্মের চুক্তি স্বাক্ষর করার আগে তাঁর অন্যতম শর্ত থাকত, তাঁর লিপে গান গাইবেন লতাজি। মীনাকুমারী (Meena Kumari)-ও মনে করতেন তাঁর লিপে লতার গানই মানানসই। বৃহস্পতিবার নাসিকের রামকুন্ডে তাঁর অস্থি বিসর্জন করেছেন তাঁর ভাইপো আদিনাথ মঙ্গেশকর (Adinath Mangeshkar)। কিন্তু ইতিমধ্যেই বলিউডে ঘটেছে পট পরিবর্তন। লতার বায়োপিক তৈরির প্রস্তাব নিয়ে এগিয়ে এসেছেন বলিউডের প্রথম সারির তিন জনপ্রিয় পরিচালক।

লতার সমগ্র জীবনের আশি শতাংশ লড়াইয়ের কাহিনী। শৈশবে পিতা দীননাথ মঙ্গেশকর (Dinanath Mangeshkar)-কে হারিয়েছিলেন লতা। অথৈ জলে ভেসে যাওয়ার মুখ থেকে পরিবারকে রক্ষা করতে মাত্র তের বছর বয়সে অর্থ রোজগার করতে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন তিনি। প্রথমেই লতা গায়িকা হয়ে ওঠেননি। অনিচ্ছাসত্ত্বেও তাঁকে অভিনয় করতে হয়েছিল মারাঠি ফিল্মে। কিন্তু আটটি ফিল্মে অভিনয় করেও সফলতা পাননি লতা। গানের জগতেও তাঁর রেকর্ড করা প্রথম গান ‘নাচু ইয়া গদে’ রিলিজ করেনি। তবু লড়াই থামাননি লতা। লড়াইটা থামিয়ে দিলে পরিবারের মুখে অন্ন যোগানোর কেউ ছিল না।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Lata Mangeshkar (@lata_mangeshkar)

লড়াই করতে করতেই একদিন লতা হয়ে উঠলেন সুরসম্রাজ্ঞী, ভারতের কোকিলকন্ঠী। বিধির বিধানেই তিনি হয়ে উঠেছিলেন জীবন্ত সরস্বতী। তবুও দুঙ্গারপুরের রাজপরিবারের কাজে তিনি ছিলেন সাধারণ মেয়ে। ফলে রাজ সিংহ দুঙ্গারপুরে (Raj Sinha Dungarpure)-র সাথে সম্পর্ক পৌঁছায়নি বিয়ের পিঁড়িতে। আজীবন দুজনেই বরণ করে নিয়েছিলেন চিরকুমারত্বকে। শেষ দিন অবধি দুজনের যোগাযোগ ছিল।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Lata Mangeshkar (@lata_mangeshkar)

এবার লতার জীবনের অলি-গলির কাহিনী নিয়ে বায়োপিক তৈরির পরিকল্পনা করছেন রাকেশ ওমপ্রকাশ মেহরা (Rakesh Omprakash Mehra), সঞ্জয় লীলা ভনশালী (Sanjay Leela Bhansali), আনন্দ এল.রাই (Anand L.Rai)। তবে সঞ্জয় বিগত দশ বছর ধরে লতার বায়োপিক তৈরির জন্য রিসার্চ করছেন। তবে লতার পরিবারের সম্মতির জন্য এই মুহূর্তে অপেক্ষায় তাঁরা। মঙ্গেশকর পরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্র অনুযায়ী, লতার পরিবারের সদস্যদের ইচ্ছা, সুরসম্রাজ্ঞীর বায়োপিক যেন লার্জ স্কেলে হয়। তিন পরিচালকের চিত্রনাট্য নিয়ে তাঁরা চিন্তাভাবনা করবেন বলে জানা গিয়েছে। এমনকি এক সাক্ষাৎকারে হেমা মালিনী (Hema Malini) লতার চরিত্রে অভিনয়ের ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Lata Mangeshkar (@lata_mangeshkar)

Avatar