Hoop PlusTollywood

Madhumita Sarcar: স্বচ্ছ টপ, ছোট্ট শর্টসে বাঁধনছাড়া আবেদন, ভক্তদের চোখ কপালে তুললেন মধুমিতা

Advertisements

ছোটপর্দা থেকে বড়পর্দায় পা রেখেই টলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী হয়ে উঠেছেন মধুমিতা সরকার (Madhumita Sarcar)। সিরিয়ালে কাজ করার সময়ও জনপ্রিয়তার শিখরে ছিলেন তিনি। সেই খ্যাতিকে সঙ্গে নিয়েই সিনেমায় পা রাখেন মধুমিতা। খুব কম সময়ের মধ্যেই বেশ কিছু ছবিতে কাজ করে ফেলেছেন তিনি। তবে মধুমিতার মূল জনপ্রিয়তা সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতেই।

অনেক কম বয়সে অভিনয়ে পা রাখেন মধুমিতা। ধাপে ধাপে সাফল্যের সিঁড়িতে চড়েছেন তিনি। সঞ্চয় করেছেন অভিজ্ঞতা। ছোটপর্দায় বহুদিন হয়ে গেল আর দেখা যায় না মধুমিতাকে। বড়পর্দা এবং ওয়েব সিরিজ নিয়েই ব্যস্ত তিনি। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও নিয়ম করে অনুরাগীদের জন্য পোস্ট করেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় খুবই সক্রিয় থাকেন মধুমিতা। বিশেষ করে ইনস্টাগ্রামে তাঁর আলাদাই জনপ্রিয়তা রয়েছে। ২.৫ মিলিয়ন ফলোয়ার রয়েছে তাঁর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে।

Madhumita Sarcar: স্বচ্ছ টপ, ছোট্ট শর্টসে বাঁধনছাড়া আবেদন, ভক্তদের চোখ কপালে তুললেন মধুমিতা

ইদানিং যেন বোল্ডনেস কয়েক গুণ বেড়ে গিয়েছে মধুমিতার। স্বল্প পোশাকে করা তাঁর ফটোশুট গুলি যে কারোর হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। সম্প্রতি মধুমিতার কয়েকটি ছবি জায়গা করে নিয়েছে চর্চার কেন্দ্রে। সাদা স্প্যাগেটি স্ট্র্যাপ স্বচ্ছ টপের সঙ্গে ডেনিম শর্টসে দেখা গেল অভিনেত্রীকে। আলো আঁধারি ফ্রেমে চরম আবেদনময়ী ভঙ্গিতে ধরা দিয়েছেন তিনি। মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে ছবিগুলি।

প্রসঙ্গত, সানন্দা টিভির ‘সবিনয় নিবেদন’ নামে একটি সিরিয়ালে প্রথম আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। তারপর কাজ করেন ‘কেয়ার করি না’ সিরিয়ালেও। সেই ধারাবাহিকটিও বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। তবে মধুমিতাকে সবথেকে বেশি খ্যাতি এনে দেয় স্টার জলসার ‘বোঝেনা সে বোঝেনা’। এই ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে দেখা মিলেছিল মধুমিতার। পাখি চরিত্রে রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। বাংলায় মধুমিতাকে শেষবার দেখা গিয়েছে ‘চিনি ২’ ছবিতে। তবে তিনি শুধুমাত্র বাংলা ছবিতেই নিজেকে আটকে রাখেননি। ইতিমধ্যেই দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতেও অভিষেকের জন্য তৈরি হচ্ছেন তিনি। ছবির শুটিং হয়ে গেলেও এ ব্যাপারে এখনো মুখে কুলুপ এঁটে রেখেছেন মধুমিতা।

Nirajana Nag

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই