Hoop PlusTollywood

Oindrila Sen: মাছ বাজারের ওই গন্ধ শুঁকেছি: ঐন্দ্রিলা

Advertisements

কিছুদিন আগেই অঙ্কুশ হাজরা (Ankush Hazra) শেয়ার করেছেন ‘মির্জা’-র নায়িকা ঐন্দ্রিলা সেন (Oindrila Sen)-এর লুক। অঙ্কুশের শেয়ার করা ছবিতে অবশ্যই এই লুক স্টাইলিশ নয়, বরং একটি সাধারণ মেয়ে মুসকানের। সালোয়ার-কামিজ পরা, চুলে দুটি বিনুনি বাঁধা মেয়ে মুসকানের নামের সাথে তার স্বভাবের অমিলের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন অঙ্কুশ। এবার এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মুসকান ওরফে ঐন্দ্রিলা নিজেই।

অঙ্কুশের প্রযোজনায় তৈরি প্রথম ফিল্ম ‘মির্জা’ মুক্তি পাবে আগামী বছরের ঈদে। এই ফিল্ম প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ঐন্দ্রিলা জানালেন, ‘মির্জা’ সম্পূর্ণ অ্যাকশন ফিল্ম। মুসকানেরও সম্পর্ক রয়েছে বাস্তবের মাটির সাথে। তবে এর বেশি এই চরিত্র নিয়ে বলতে নারাজ ঐন্দ্রিলা। সালোয়ার-কামিজ পরা এই লুকটির নেপথ্যে রয়েছে বিশেষ এক্সপেরিমেন্ট বলে জানালেন ঐন্দ্রিলা। তবে এই ধরনের চরিত্রে এর আগে অভিনয় করেননি তিনি। মুসকান হয়ে ওঠার জন্য লাগাতার ছয় থেকে আট মাস প্রস্তুতি নিয়েছেন তিনি। বহু পুরুষের মধ্যে বাজারে একমাত্র সুন্দর মাছওয়ালি হয়ে উঠতে রীতিমত প্রশিক্ষণ নিতে হয়েছে তাঁকে। রপ্ত করতে হয়েছে বডি ল্যাঙ্গোয়েজ। মাছের বাজারে বসে মুসকানের চরিত্রে অভিনয় করতে হয়েছে ঐন্দ্রিলাকে।

ফলে মাছের আঁশটে গন্ধে যাতে অসুবিধা না হয় তার জন্য কিছুদিন মাছের বাজারেও গিয়েছেন ঐন্দ্রিলা। তবে প্রথম দিন অবশ্য মাছের আঁশটে গন্ধে বমি করে ফেলেছিলেন। তবে ধীরে ধীরে অভ্যাস হয়ে গিয়েছিল তাঁর। ঐন্দ্রিলা মুখ খুলেছেন ‘মির্জা’-র সমস্যার বিষয়েও। সমস্যার সূত্রপাত হয়েছিল সহ-প্রযোজকদের নিয়ে। তবে পরবর্তীকালে ‘মির্জা’ পুরোটা একাই প্রযোজনা করেছেন অঙ্কুশ। কারণ তাঁর নিজের টাকা খরচ হলে কাউকে উত্তর দিতে হবে না।

কিন্তু সহ-প্রযোজকদের বিশ্বাসযোগ্যতার অভাবের কারণে সরে আসতে বাধ্য হয়েছিলেন অঙ্কুশ। আপাতত তাঁর পাখির চোখ ‘মির্জা’। মুক্তির দিন গুনছেন অঙ্কুশ ও ঐন্দ্রিলা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Oindrila Sen (@love_oindrila)