whatsapp channel

Soumitrisha Kundu: যার নামে সিরিয়াল সে-ই বাদ! ‘মিঠাই’ পরিবারের ফ্রেম থেকে উধাও সৌমিতৃষা

এক সময় সিরিয়াল জগতের সবথেকে সুখী পরিবার নামে পরিচিত ছিল মোদক পরিবার। জি বাংলার 'মিঠাই' (Mithai) ধারাবাহিকের এই যৌথ পরিবার একেবারে প্রথম থেকেই দর্শকদের মনে বিশেষ জায়গা করে নিয়েছিল। দাদাই…

Avatar

Nirajana Nag

এক সময় সিরিয়াল জগতের সবথেকে সুখী পরিবার নামে পরিচিত ছিল মোদক পরিবার। জি বাংলার ‘মিঠাই’ (Mithai) ধারাবাহিকের এই যৌথ পরিবার একেবারে প্রথম থেকেই দর্শকদের মনে বিশেষ জায়গা করে নিয়েছিল। দাদাই ঠাম্মি থেকে হল্লা পার্টি, সকলেই যেন নিজেদের পরিবারের সঙ্গে কোনো না কোনো মিল পেয়েছিল এই পরিবারের। মিঠাই সিরিয়ালটি তাই খুব কম সময়েই উঠে গিয়েছিল টপে। কিন্তু ধারাবাহিক শেষ হতে না হতেই যে এমন অবস্থা হবে তা কেউ ভাবতেই পারেনি। মোদক পরিবার থেকে আউটই হয়ে গেলেন খোদ মিঠাই সৌমিতৃষা কুণ্ডু (Soumitrisha Kundu)!

বেশ কিছুদিন ধরেই রটনা শোনা যাচ্ছিল, মিঠাই সিরিয়ালের সহ অভিনেতা অভিনেত্রীদের সঙ্গে নাকি তিক্ততা বেড়েছে সৌমিতৃষার। নায়ক আদৃত রায়ের সঙ্গে চরম মনোমালিন্যের খবর সিরিয়াল চলাকালীনই ছড়িয়েছিল। অভিনেত্রী কৌশাম্বী চক্রবর্তীর সঙ্গেও সৌমিতৃষার বন্ধুত্ব ভেঙেছে বলে শোনা গিয়ে গুঞ্জন। নেপথ্যে আদৃত কৌশাম্বীর বিশেষ সম্পর্কই কারণ বলে অনুমান করেছিলেন সকলে। এবার সেই জল্পনাতেই এক প্রকার শিলমোহর দিয়ে পরিবার থেকে বাদ পড়লেন সৌমিতৃষা।

Soumitrisha Kundu: যার নামে সিরিয়াল সে-ই বাদ! 'মিঠাই' পরিবারের ফ্রেম থেকে উধাও সৌমিতৃষা

সম্প্রতি নতুন বছরের উদযাপন উপলক্ষে একত্র হয়েছিল মিঠাই পরিবার। সিরিয়ালের বেশ কয়েকজন সদস্যকে দেখা গেল একসঙ্গে। ছিলেন দাদাই সিদ্ধেশ্বর মোদক, ঠাম্মি সুষমা মোদক, সোম, রুদ্রদা, নন্দা এবং উচ্ছেবাবুও। ছবিটি শেয়ার করেছেন সোম ওরফে অভিনেতা ধ্রুবজ্যোতি সরকার। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘সবাইকে জানাই শুরু নববর্ষ’।

এই ছবি দেখেই মিঠাই ভক্তদের প্রশ্ন, সৌমিতৃষা কোথায়? যার নামে সিরিয়াল ছিল, তিনিই কিনা বাদ পড়ে গেলেন? যদিও রাজীব, শ্রী, নীপাও এই ফ্রেম থেকে বাদ পড়লেও অনেকে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন কৌশাম্বী আদৃতের উপরে। তাঁদের জন্যই নাকি প্রাথমিক ভাবে ভাঙন ধরেছে মিঠাই পরিবারে। এদিকে সৌমিতৃষারও কম ট্রোলিং হচ্ছে না। বড়পর্দায় পা রাখতে না রাখতে অহংকারী তকমা পেয়েছেন তিনি। যদিও অভিনেত্রীর বক্তব্য, যারা পরিশ্রম করে উপরে ওঠে তাদের অহংকার থাকে না। আর তিনি পরিশ্রম করেই এই জায়গায় এসেছেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Dhruba Jyoti Sarkar (@dhrubo.s)

Avatar

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই