whatsapp channel

Swastika Mukherjee: ক্যামেরার সামনেই চরম সীমা পেরোলেন স্বস্তিকা, ভাইরাল ভিডিও

সোশ্যাল মিডিয়ায় সর্বক্ষণই কিছু না কিছু ভিডিও ভাইরাল (Viral Video) হয়ে চলেছে। এর মধ্যে কিছু কিছু ভিডিও হইচই ফেলে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। সম্প্রতি এমনই একটু ভিডিও নিয়ে তুমুল চর্চা চলছে…

Avatar

Nirajana Nag

সোশ্যাল মিডিয়ায় সর্বক্ষণই কিছু না কিছু ভিডিও ভাইরাল (Viral Video) হয়ে চলেছে। এর মধ্যে কিছু কিছু ভিডিও হইচই ফেলে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। সম্প্রতি এমনই একটু ভিডিও নিয়ে তুমুল চর্চা চলছে নেট পাড়ায়। ভিডিওর কেন্দ্রে অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় (Swastika Mukherjee)। ক্যামেরার সামনেই হস্তমৈথুনে মগ্ন রয়েছেন তিনি। তাঁর সঙ্গে ভিডিও কলে দেখা যাচ্ছে এক ব্যক্তিকে। কয়েক সেকেন্ডের এই ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ভাইরাল হয়েছে ভিডিওটি।

কিন্তু ভিডিওতে মহিলাটি কি স্বস্তিকা নিজেই? নাকি কোনো ডিপফেকের শিকার তিনি? কীভাবেই বা ছড়াল এই ভিডিও? প্রথমত, এটি কোনোও ডিপফেক নয়। ভিডিওতে মহিলাটি তিনি নিজেই। আসলে এটি রিল লাইফের ঘটনা। পরিচালক দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘লাভ সেক্স অউর ধোঁকা’ ছবিতে অভিনয় করেছেন স্বস্তিকা। সেই ছবিরই প্রিভিউ কপি থেকে ভাইরাল হয়েছে এই দৃশ্যটি। সদ্য শোনা গিয়েছিল যে সেন্সর বোর্ডের তরফে আসন্ন ছবিটির একাধিক দৃশ্যে কাটছাঁট করা হয়েছে। তার মধ্যেই ভাইরাল এই দৃশ্য। স্বাভাবিক ভাবেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

শোনা যাচ্ছে, স্বস্তিকা নাকি প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ। ছবির নির্মাতাদের তরফে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন সাইট থেকে ভিডিওটি সরিয়ে ফেলার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু প্রিভিউ কপি থেকে কীভাবে একটি আসন্ন সিনেমার এমন দৃশ্য ভাইরাল হয়ে যায় তা নিয়েও উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। এ বিষয়ে তদন্তও চালানো হচ্ছে। উল্লেখ্য, এর আগেও বাংলা ছবি ‘টেক ওয়ান’ এর একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল ‘স্বস্তিকার এমএমএস’ নামে। এমনকি হেনস্থা হয়েছিলেন অভিনেত্রীর মা বাবাও।

প্রসঙ্গত, ১৪ বছর আগে মুক্তিপ্রাপ্ত লাভ সেক্স অউর ধোঁকা ছবির সিক্যুয়েল নিয়ে ফিরছেন পরিচালক দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায়। বাঙালি পরিচালকের প্রথম ছবিটি বক্স অফিসে ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল। সিক্যুয়েল ছবিতে স্বস্তিকা ছাড়াও রয়েছেন পরিতোষ তিওয়ারি, বনিতা রাজপুরোহিত, অভিনব সিং। বিতর্ক কাটিয়ে ছবিটি মুক্তি পাওয়ার অপেক্ষায় নির্মাতারা।

Avatar

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই