Hoop News

Winter Update: অগ্রহায়ণের শুরুতেই হাড়কাঁপানো শীত! জেনে নিন হাওয়া অফিসের বড় আপডেট

গত পরশু শেষ হয়েছে কার্তিক মাস। অগ্রহায়ণ মাসের সূচনা ঘটে গিয়েছে ক্যালেন্ডারে। অর্থাৎ, অফিসিয়ালি হেমন্ত মাসের দ্বিতীয় পর্যায় শুরু হয়েছে রাজ্যে। তার প্রভাব দেখা যাচ্ছে বাইরের চারপাশেও। গতকাল থেকেই সকাল সন্ধ্যা কুয়াশায় ঢাকা পরিবেশ। রাত বাড়লেই নামছে পারদ। সূর্যাস্তের পরেই শীতের চাদরে ধীরে ধীরে ঢেকে যাচ্ছে চারপাশ। গতকাল থেকেই এমন আবহাওয়ার পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায়। বিশেষ করে পশ্চিমের জেলাগুলিতে নেমেছে তাপমাত্রা।

নভেম্বরের শুরু থেকে তেমনভাবে শীতের প্রভাব না দেখা গেলেও, মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে একটু একটু করে আড়মোড়া ভাঙছে শীত। তাপমাত্রা নামছে স্বাভাবিকের নীচে। তাই শীতের প্রভাব পড়ছে রাজ্যে। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার পর্যন্ত নিম্নচাপের ভ্রুকুটি ছিল বঙ্গে। তবে শনিবার সব সতর্কতা তুলে নিয়েছে আলিপুর হাওয়া অফিস। কার্তিক পুজোর পরেই শুস্ক আবহাওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে রাজ্যের অধিকাংশ জায়গার জন্য। সেই কারণেই আজ থেকে দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায়, বিশেষ করে পশ্চিমের জেলাগুলিতে নেমেছে তাপমাত্রা। ফলস্বরূপ আগামী তিন দিন লাগাতার পশ্চিমবঙ্গের জেলায় তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি থেকে ৩ ডিগ্রি কমবে বলে অনুমান হাওয়া অফিসের। এখন একনজরে দেখে নিন আজ কেমন থাকবে রাজ্যের আবহাওয়া।

■ কলকাতার আবহাওয়া: আলিপুর হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী আজ কলকাতায় বৃষ্টির কোনো পূর্বাভাস নেই। সেই কারণে আজ শহরের আকাশ মূলত পরিষ্কার থাকবে। আজ কলকাতার বুকে সর্বোচ্চ ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা অনুভূত হবে। স্বভাবতই শীতের প্রভাব আজ থেকে ভালোভাবে বুঝতে পারবেন তিলোত্তমাবাসী। আগামী কয়েকদিন এভাবেই তাপমাত্রার পতন হবে বলেও জানা গেছে।

■ দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া: আজ দক্ষিণবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, কলকাতা, হুগলি, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান, পূর্ব বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ এবং নদিয়া জেলায় বৃষ্টির কোনো পূর্বাভাস নেই। তবে পশ্চিমের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা আজ থেকে লাগাতার নামবে। কোথাও কোথাও ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচেও নেমে যেতে পারে পারদ।

■ উত্তরবঙ্গের আবহাওয়া: যান উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর এবং মালদা জেলায় বৃষ্টি কোনো সম্ভাবনা নেই। তাই উত্তরের জেলাগুলিতে শুস্ক আবহাওয়ার সঙ্গে বাড়বে শীতের প্রভাব।