whatsapp channel

ক্রমশ বাড়ছে ‘আলো ছায়া’র জনপ্রিয়তা, এবার কি ঘটতে চলেছে ধারাবাহিকে!

Avatar

HoopHaap Digital Media

জি বাংলা জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘আলো ছায়া’র গল্প নিয়ে বেশ উৎসাহিত দর্শকরা। আগের সপ্তাহে এই ধারাবাহিকে রেটিং ছিল ৪.৩। এই সপ্তাহে রেটিং বেড়ে গিয়ে ৫.৪। দিনে দিনে এই ধারাবাহিকের রেটিং বেড়ে চলেছে এর রহস্য কি সেটা জানতে আগ্রহী নেটিজেন। কিছু কিছু মানুষদের মনে প্রশ্ন বাস্তবতা ধরে তুলছে বলে তাই কি এত রেটিং বেড়ে যাচ্ছে? এইসব কৌতূহলের প্রশ্নের উত্তর দিল ‘আলো ছায়া’ ধারাবাহিকের সদস্যরা।

এই দর্শকের সংখ্যা বাড়ানোর রহস্যের কথা জানতে চাওয়া হলো এই ধারাবাহিকে আলো তথা দেবাদৃতার কাছে। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন, প্রত্যেক মানুষের জীবনের আলো এবং ছায়ার অবস্থান হয়। এই ধারাবাহিকের ছায়া চরিত্রটি একেবারেই খলনায়িকার চরিত্রে নয়। আলোর একটু অভাব আছে তার জীবনে। বাবান এর ভালোবাসায় না এখন অন্ধ হয়ে আছে। তাই ছায়া আলোকে ভুল বুঝে বারবার। এই ঘটনা মোটামুটি সব বাড়িতেই দেখা যায়। এই মতবিরোধ বাস্তবে কিছু নতুন নয়। এছাড়া দর্শকরা এখন বাস্তব দেখতে বেশি ভালোবাসে। বর্তমান গল্প অনুযায়ী আলো ছায়া দুই বোনের সম্পর্কে চিড় ধরেছে বাবানের কারনে। সব বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে আবার কি আগের মত এক হতে পারবে আলো ছায়া! এই টানটান উত্তেজনায় গল্পের প্লট।

এছাড়াও তার বোন ‘ছায়া’কে জিতিয়ে দেওয়ার প্রশ্ন করতেই ‘আলো’ জানান, আলো তার বোনের জন্য মরতেও রাজি আছে। বোনের জীবন বাঁচাতে একসময় তাকে শ্বশুরের বিরুদ্ধে যেতে হবে যা খুবই কঠিন। তবু বোনের জন্য তিনি এটুকু করতেই পারেন। এবার ‘আলো এবং আকাশে’র প্রেমের সম্পর্কের প্রশ্ন করতেই তিনি জবাব দিলেন, “এত দিন বিয়ে হয়েছে। আকাশ আলোর ভাল বন্ধু। কিন্তু সেখানে প্রেম ছিল না। এ বার সেটাও আসছে। আকাশ আরও কাছে টেনে নিচ্ছে আলোকে। বুঝতে চেষ্টা করছে। এক জন শিক্ষিত মেয়ের এত লড়াইয়ের পাশাপাশি রোম্যান্স। এর টান অগ্রাহ্য করার উপায় নেই”।

প্রযোজক সুশান্ত দাস-কে এই ধারাবাহিকের রেটিং নিয়ে প্রশ্ন করতেই তিনি বললেন, “আমরা কিন্তু অন্য ধারাবাহিকের মতো গ্রাম্য, তথাকথিত অশিক্ষিত মেয়ে সময়ের তালে লড়াইয়ে জিতছে বা নিজেকে ঘষে মেজে তৈরি করছে, সেটা দেখাচ্ছি না। আলো কিন্তু অন্যদের মতো নয়। এখানে এক শিক্ষিত মেয়ের লড়াইয়ের গল্প। তাই ধারাবাহিকের গল্পও অনেক মার্জিত, টানটান। সেটাই টানছে দর্শকদের”। এছাড়া তাকে নিজের দেখাও এমন প্রশ্ন করতেই তার কথায়, দীর্ঘদিন ধরে এই প্রযোজনা এবং পরিচালকের পথে থাকতে থাকতে তার অভিজ্ঞতা হয়ে গেছে কোন বয়সের দর্শক দেখতে চান নায়ক-নায়িকার কাছ থেকে। তাই তিনি নিজে রেকর্ডিং করে সবার ফোনে ফোনে পাঠিয়ে দেন এই ভাবেই প্রত্যেক দিনের পর্ব তৈরি হয় এই ‘আলো ছায়া’ ধারাবাহিকের।

Avatar