whatsapp channel

2023 Saraswati Puja: পুরোহিত ছাড়াই বাড়িতে সরস্বতী পুজো করুন সহজ পদ্ধতি মেনে

মাঘ মাসের শুক্ল পক্ষের পঞ্চমী তিথিতে প্রতি বছরই পালিত হয়। এই উৎসব বিদ্যার দেবীর সরস্বতীর আরাধনায় প্রত্যেকেই মেতে ওঠে। মা দেবীকে লক্ষ্য করে অঞ্জলি দিয়ে তারা তাদের বিদ্যার জায়গাকে ঠিক…

Avatar

Shreya Chatterjee

মাঘ মাসের শুক্ল পক্ষের পঞ্চমী তিথিতে প্রতি বছরই পালিত হয়। এই উৎসব বিদ্যার দেবীর সরস্বতীর আরাধনায় প্রত্যেকেই মেতে ওঠে। মা দেবীকে লক্ষ্য করে অঞ্জলি দিয়ে তারা তাদের বিদ্যার জায়গাকে ঠিক করতে চায়। এ বছর প্রজাতন্ত্র দিবসের দিনে সরস্বতী পূজা পড়েছে। এই পুজোর দিন, অনেক সময় হাতের নাগালে পাওয়া যায় না। কিন্তু পুরোহিত মশাইকে পাওয়া যাবে না বলে বাড়িতে পুজো হবে না, এমনটা তো হতেই পারে না, তাই কিভাবে সহজ পদ্ধতি মেনে বাড়িতে সরস্বতী পুজো করতে পারেন জেনে নিন তারই ঝলক। সরস্বতী পুজোর জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী-

দেবী সরস্বতীর একটি মূর্তি বা ছবি
এক টুকরো পরিষ্কার সাদা রঙের কাপড়
পদ্ম, লিলি ও জুঁই ফুল-সহ অন্যান্য ফুল
হলুদ রঙের ফুল থাকা জরুরি।
আম পাতা ও বেল পাতা
হলুদ ও সিঁদুর
কিছুটা চাল
নারকেল ও কলা-সহ পাঁচ রকমের ফল
পান পাতা, সুপারি ও একটি কলস
ধূপকাঠি
দোয়াত ও কালি

জেনে নিন সকাল বেলার নিয়ম –

সরস্বতী পূজোর দিন সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে ভালো করে স্নান করে নিতে হবে। নিজেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। কানের জলে সেদিন নিম পাতা, তুলসীপাতা দিতে পারেন, এতে জল অনেক শুদ্ধ হয়ে থাকবে। এছাড়া স্নান করার আগে মুখে এবং গায়ের নিম ও কাঁচা হলুদ বাটা মেখে নেবেন, আমাদের দেহের এতে শুদ্ধিকরণ হবে বা কোন রকম ইনফেকশন আমাদেরকে গ্রাস করতে পারবে না, আসলে এই সময়টিতে ওয়েদার বা আবহাওয়া এমন থাকে, তাতে পক্স হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, সেজন্য আপনি কাঁচা হলুদ এগুলো কিন্তু পক্সের হাত থেকে আপনাকে রক্ষা করবে। সাদা বা হলুদ রঙের বস্ত্র পরিধান করবেন।

জেনে নিন কিভাবে মূর্তি আর কলস স্থাপন করবেন-

প্রথমেই যেখানে স্থাপন করবেন, জায়গাটিকে খুব ভালো করে পরিষ্কার করে নিতে হবে, তারপর একটি ঘট বসাতে হবে। এরপরে পরিষ্কার সাদা কাপড় দিতে হবে, এরপর সরস্বতীর মূর্তিটি স্থাপন করতে হবে, দেবীকে খুব ভালো করে ফুলের মালা দিয়ে সাজাতে হবে। পুজোর স্থানে হলুদ সিঁদুর চাল দিয়ে আলপনা দিতে পারেন, এছাড়া বই, খাতা, পেন্সিল, হারমোনিয়াম আকার জিনিসপত্র এইসব দিতে পারেন ঠাকুরের পাশে।

কালীর দোওয়াতকে অবশ্যই দুধ দিয়ে ভরে দিতে হবে, এর মধ্যে খাগের কলম দিয়ে দিতে হবে। ঠাকুরের পাশে রেখে দিতে হবে তারপরে ঘট প্রতিস্থাপন করতে হবে, ঘটের ওপরে আমের পল্লব দিয়ে দিন, ঘটকে গঙ্গা জল খেয়ে ভর্তি করতে হবে, তারপর পানপত্র রেখে দিতে হবে, এতে রাখতে হবে সুপরি। এর উপরে ফুল এবং দুর্গা অবশ্যই রাখতে হবে, দেবীর পাশে গণেশ ঠাকুরের মূর্তিও রাখতে পারেন।

শ্রীপঞ্চমী পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র-

ওঁ জয় জয় দেবী চরাচরসারে, কুচযুগশোভিত মুক্তাহারে।

বীনারঞ্জিত পুস্তক হস্তে, ভগবতী ভারতী দেবী নমোহস্তুতে।।

ওঁ সরস্বত্যৈ নমা নিত্যং ভদ্রকাল্যৈ নমা নমঃ বেদবেদান্তবেদাঙ্গ বিদ্যাস্থানেভ্য এব চ।

এষ সচন্দন পুষ্পবিল্বপত্ৰাঞ্জলি সরস্বত্যৈ নমঃ ॥

পুজোর শেষ হওয়ার পরে জল এবং খাবার গ্রহণ করবেন, ওদিন পড়াশোনা করা কিন্তু একেবারেই যাবে না। এই দিন আর প্রসাদ হিসেবে ফল খই, মুড়কি, মিষ্টি খিচুড়ি, লাবড়া বাড়িতে রান্না করতে পারেন বিকাল বেলা অবশ্য লুচি, ছোলার ডাল নানা রকম রান্না করে ঠাকুরের উদ্দেশ্য দিতে পারেন।

দ্বিতীয় দিনের পুষ্পাঞ্জলী ও দধিকর্মার নিয়ম –
পুজোর দিন সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে আবারো পুরষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়ে নিতে হবে। পর বেল পাতায় খাগে কলম দুধের মধ্যে ডুবিয়ে ওম সরস্বতী নম লিখতে হবে তিনবার করে তারপর ফুল বেল পাতা নিয়ে পুষ্পাঞ্জলি দিতে হবে। এরপর খই দুই মিষ্টি দিয়ে ভালো করে নৈবেদ্য মাখতে হবে। একেই বলে দুধিকর মা তারপরে খুব ভালো করে জায়গাটি পরিষ্কার করে দেবীকে সন্ধ্যায় বিসর্জন দিতে হবে।

Avatar

আমি শ্রেয়া চ্যাটার্জী। বর্তমানে Hoophaap-এর লেখিকা। লাইফস্টাইল এবং বিনোদনমূলক লেখা আপনাদের কাছে তুলে ধরি। অনলাইনের সুবাদে রান্নার রেসিপি, রূপচর্চা, কুকিং টিপস, বেড়ানোর জায়গার সন্ধান এগুলো যেমন জানা প্রয়োজন, ঠিক তেমনি মনোরঞ্জনের জন্য শর্টফিল্ম, সিরিজ এগুলোরও সমান গুরুত্ব। সমস্ত খবরকেই লেখার মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করি। অনেক ধন্যবাদ সকলক