Hoop SportsHoop Trending

Sania Mirza: এই পাক সুন্দরীর কারণে ভাঙছে সানিয়া মির্জার সংসার, সৌন্দর্যে হার মানবে ঐশ্বর্য

শোয়েব মালিক (Shoaib Malik) ও সানিয়া মির্জা (Sania Mirza)-র বিবাহ বিচ্ছেদের খবরে সরগরম সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে এই বৈবাহিক সম্পর্ক একসময় অনেক আশা জাগালেও কার্যতঃ তা ফলপ্রসু হয়নি। বর্তমানে আলাদা থাকছেন সানিয়া ও শোয়েব। তবে দুজনে একসাথে তাঁদের একমাত্র পুত্রসন্তান ইজান মির্জা মালিক (Izan Mirza Malik)-এর জন্মদিন একসাথে পালন করলেও যুগলের ছবি সেভাবে দেখা যায়নি। সানিয়ার সাথে শোয়েবের সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকার কারণ হিসাবে অনেকেই দায়ী করছেন শোয়েবের পরকীয়াকে। শোনা যাচ্ছে, তিনা নাকি এক মহিলার সাথে সম্পর্কে জড়িয়েছেন। তিনি আর কেউ নন, পাকিস্তানি অভিনেত্রী আয়েশা ওমর (Ayesha Omar)।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Ayesha Omar (@ayesha.m.omar)

এক বছর আগে শোয়েবের সাথে আয়েশা একটি বোল্ড ফটোশুট করেছিলেন। সেই ফটোশুটে তাঁদের একসাথে জলের মধ্যে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা গিয়েছিল। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই শুরু হয় সানিয়ার সাথে শোয়েবের বিবাহ বিচ্ছেদের জল্পনা। শোনা যাচ্ছে, তা শুধুমাত্র জল্পনায় সীমাবদ্ধ ছিল না। সানিয়া ও শোয়েবের মধ্যে রীতিমত অশান্তির সূত্রপাত হয়েছিল এই কারণে। তবে শোয়েবের পরকীয়ার ঘটনার সত্যতা জানা যায়নি।

পাকিস্তানের যথেষ্ট বিখ্যাত অভিনেত্রী আয়েশা। 2015 সালে ‘করাচি সে লাহোর’ ফিল্মের মাধ্যমে পাকিস্তানি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে পরিচিতি লাভ করেন তিনি। এরপর ‘ইয়ালগার’, ‘কাফ কঙ্গনা’-র মতো ফিল্মে অভিনয়ের মাধ্যমে প্রশংসিত হন আয়েশা। পাকিস্তানী অভিনেত্রীদের মধ্যে আয়েশা সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক লাভ করেন। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যাও যথেষ্ট বেশি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Ayesha Omar (@ayesha.m.omar)

অপরদিকে টেনিস সুন্দরী সানিয়া মির্জার সাথে 2010 সালে বিয়ে হয় শোয়েব মালিকের। প্রসঙ্গত, সানিয়া শোয়েবের দ্বিতীয় স্ত্রী। 2018 সালে জন্ম হয় তাঁদের পুত্রসন্তান ইজানের।