Hoop Tech

Electric Car: অথৈ জলে ডুববে TATA-র ব্যবসা! ভারতের বাজারে এসে গেলো এই ইলেকট্রিক গাড়ি

Advertisements

যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বদলে যাচ্ছে মানুষের জীবনধারা। আর সেই জীবনধারার অন্যতম অঙ্গ হল পরিবহনে সুবিধা। সেই কারণেই ভারতের বাজারে দিন দিন গাড়ির চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যেও। এখন কমবেশি সকলেই নিজের গাড়িতে যাতায়াত করতে পছন্দ করেন। তাই সামর্থ অনুযায়ী সকলে পছন্দের গাড়ি কেনার দিকে ঝোঁকেন। জ্বালানি তেলের বাড়তে থাকা দামের দিকে লক্ষ্য করে অনেককেই এখন ইলেকট্রিক গাড়ি কেনার দিকে ঝুঁকছেন। কারণ তেলের দাম যে হারে বেড়েছে বিগত সময়ে, তাতে করে ইলেকট্রিক ভেহিকেলে খরচ অনেকটাই কম হয়।

আর এখন ভারতের ইলেকট্রিক গাড়ির বাজারে একাধিক কোম্পানি নিজেদের নাম লিখিয়েছে। তবে সেই অর্থে চার চাকা ইলেকট্রিক গাড়ির বিকল্প উপলব্ধ নেই দেশীয় বাজারে। আর এই অবস্থায় একটি স্টার্টআপ কোম্পানি চেরি লিটল অ্যান্ট (Cherry Little Ant) নামের একটি গাড়ি লঞ্চ করেছে, যা আকর্ষণীয় হতে চলেছে ক্রেতাদের কাছে। কারণ টাটা ন্যানোর মতো আকৃতি ও ফিচার্স সহ গাড়িটি পাওয়া যাবে আকর্ষণীয় মূল্যে। এখন একনজরে দেখে নিন এই গাড়ির দাম ও ফিচার্স সম্পর্কে।

● ইঞ্জিন: এই ইলেকট্রিক গাড়িতে পায়ে যাবেন একটি ৩৫ কিলোওয়াট আওয়ার লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি। সেই কারণে একবার ফুল চার্জ দিলে এই গাড়িটি ৪১৬ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে সক্ষম। এই গাড়িটি শুন্য থেকে পুরোপুরি ফুল চার্জ হতে সময় লাগবে ৩ ঘণ্টা। অর্থাৎ ফাস্ট চার্জিংয়ের সাপোর্ট মিলবে এই গাড়িতে।

● ফিচার্স: এই গাড়িতে মিলবে কিছু অত্যাধুনিক ফিচার্স। এই ইলেকট্রিক ভেহিকেলে মিলবে ৮ ইঞ্চি টাচ স্কিন ইমফোর্টেনমেন্ট সিস্টেম, এমবেডেড নেভিগেশন সিস্টেম, ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার, ৩৬০ ডিগ্রি ক্যামেরা, ওয়্যারলেস চার্জারের মতো ফিচার্স। এছাড়াও সুরক্ষার বিষয়ে আরো একাধিক ফিচার্স মিলবে এই গাড়িতে।

● দাম: ৪ আসন বিশিষ্ট এই গাড়িটি দেশের অন্যতম সস্তা ইলেকট্রিক গাড়ি হতে চলেছে। কারণ এই গাড়ির এক্স-শোরুম দাম হতে পারে ৮.৯২ ললঃ টাকা থেকে ৯.৪৯ লক্ষ টাকা।

Debaprasad Mukherjee

Hoophaap-এর সম্পাদক দেবপ্রসাদ বিগত কয়েক বছর যাবৎ সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ার হাত ধরেই সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি। রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা, লাইফস্টাইল, প্রযুক্তি প্রভৃতি সব ধরণের খবরের উপস্থাপনার কাজে যথেষ্ট সাবলীল। নিউজ ডেস্ক ছাড়াও রয়েছে ভিডিও এডিটিং এবং ক্যামেরার পিছনে বিচিত্র অভিজ্ঞতা