Hoop Fitness

Lifestyle: সন্তানের কম হাইট নিয়ে চিন্তিত! খুদের খাদ্যতালিকায় আজ থেকেই রাখুন এই ৫টি খাবার

Advertisements

বাচ্চা খাচ্ছে না, বাড়ছে না এরকম নানান সমস্যার কথা মায়েদের মুখে শোনা যায়। অনেকে বাজারজাত বিভিন্ন হেলথ ড্রিংক দেন, যাতে বাচ্চার উচ্চতা ও ওজন দুইই বৃদ্ধি পায়। কিন্তু, আপনাকে জানতে হবে বাচ্চার উচ্চতা তিনটি জিনিসের উপর নির্ভর করে, এক – জেনেটিক অর্থাৎ জিন গত দিক, দ্বিতীয়টি হল হরমোন, এবং অন্যটি হল পুষ্টিকর খাবার।

পিতামাতার উচ্চতা একটি সন্তানের উচ্চতার উপর সক্রিয় প্রভাব বিস্তার করে। আপনাকে জানতে হবে, উচ্চতা হল একটি পলিজেনিক বৈশিষ্ট্য, যার অর্থ একাধিক জিন জড়িত। কেউ বাবা মা ছাড়া হয়তো কাকা, মামা, দিদি, পিসি, দাদু, ঠাকুমার উচ্চতা পেল। এছাড়াও, গ্রোথ হরমোন খুবই গুরুত্বপূর্ন বিকাশের ক্ষেত্রে। সাধারণত, বয়ঃসন্ধির সময় এই গ্রোথ হরমোনের প্রভাবে বাচ্চার উচ্চতা বাড়ে। শৈশব থেকে কৈশোর কাল পর্যন্ত টেস্টোস্টেরন এবং ইস্ট্রোজেন হরমোন বিশেষ ভাবে কাজ করে। কিন্তু, আজ আমরা আলোচনা করবো বাচ্চাদের জন্য উপকারী কিছু পুষ্টিকর খাবার নিয়ে যেগুলি বাচ্চাদের ব্রেন এবং গ্রোথ দুই বিকাশের জন্য অপরিহার্য।

১) দুধ – খাটি গরুর দুধ প্রত্যেকটি বাচ্চার পান করা উচিত। প্যাকেটজাত দুধ নয়। দেশী গরুর দুধ হল বাচ্চার বিকাশের জন্য অপরিহার্য। এতে এদের হাড় মজবুত হয়। বিশেষত, দুধে ভিটামিন, প্রোটিন, ক্যালশিয়াম, মিনারেলসের কারণে এদের শরীরে সমস্ত পুষ্টিগুণ প্রবেশ করে।

২) মাছ – ছোট মাছ সেদ্ধ করে দিন। তেলে ভাজলেও হালকা ভেজে ঝোল দিয়ে ফোটান। নয়তো পুরোপুরি সেদ্ধ করে মাছ দেওয়া যেতে পারে।

৩) একটা গোটা ডিম – রোজ একটা করে ডিম বাচ্চার ডায়েটে রাখুন। ডিমের অমলেট নয়, সেদ্ধ দেওয়াটা কার্যকরী।

৪) গাজর, করাইশুটি, টম্যাটো, পালং শাক – সমস্ত সবজি বাচ্চার লাঞ্চ কিংবা ডিনারে রাখুন। সপ্তাহে একদিন করে চিকেন দিন।

৫) এছাড়াও, যতটা সম্ভব ঘরের খাবার দেওয়ার চেষ্টা করুন। যেমন – আটার রুটি, তরকারি, ডাল সিদ্ধ, অল্প ভাত, সুজি, ছাতু, ওটস, ড্রাই ফ্রুটস, ফল বা ফলের জুস এবং পরিমাণমত সাদা নরম্যাল জল। মাথায় রাখতে বাচ্চা যত বেশি করে পুষ্টিকর খাবার খাবে ওর গ্রোথ তত ভালো হবে ।

Disclaimer : উপরের সমস্ত তথ্যাদি পুষ্টিবিদ ও শিশুবিষয়ক ডাক্তারের পরামর্শে লেখা । কোনো টিপস্ গ্রহণ করার আগে ডাক্তারি পরামর্শ বাধ্যতামূলক।