whatsapp channel

খলনায়ক থেকে নায়ক, লাঠির বাড়ি মেরে শিমুলকে বাঁচালো পরাগ, ভাইরাল নতুন প্রোমো

সদ্য স্লট বদলেছে 'কার কাছে কই মনের কথা'র (Kar Kache Koi Moner Kotha)। সন্ধ্যা সাড়ে ছটার বদলে সোজা রাত সাড়ে নটায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে এই ধারাবাহিকটিকে। জি বাংলার এই সিরিয়ালটি…

Avatar

Nirajana Nag

সদ্য স্লট বদলেছে ‘কার কাছে কই মনের কথা’র (Kar Kache Koi Moner Kotha)। সন্ধ্যা সাড়ে ছটার বদলে সোজা রাত সাড়ে নটায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে এই ধারাবাহিকটিকে। জি বাংলার এই সিরিয়ালটি প্রথম দিকে ভাল টিআরপি নিয়ে শুরু করলেও গল্প এগোনোর সঙ্গে সঙ্গে একাধিক বিতর্ক জড়িয়েছে ধারাবাহিকের সঙ্গে। শিমুল চরিত্রটিকেও তুলোধনা করেছেন দর্শকদের একাংশ। তুমুল ট্রোলের মুখে পড়েছেন সিরিয়ালের নির্মাতারা। এমনকি পাল্লা দিয়ে কমেছে টিআরপি। তাই স্লট বদলের সঙ্গে সঙ্গে নতুন টুইস্টও নিয়ে আসা হচ্ছে সিরিয়ালে।

সম্প্রতি চ্যানেলের তরফে প্রকাশ্যে আনা হয়েছে কার কাছে কই মনের কথার নতুন প্রোমো। দর্শকরা জানেন, পরাগের অসহায়তার জন্য আবারো তার সঙ্গে বিয়েটা রিনিউ করে পরাগের স্কুলের চাকরি নিয়েছে শিমুল। অতীতের সমস্ত তিক্ততা ভুলে আবারো পরাগের প্রতি ঝুঁকে পড়েছে সে। এদিকে সম্প্রতি দেখানো হয়েছে, স্কুল থেকে ফিরে শিমুল দেখে পরাগ বাড়িতে নেই। একটি চিঠি লিখে রেখে বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছে সে।

এবার নতুন প্রোমোতে দেখানো হয়, স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার সময় অন্ধকার রাস্তায় হামলা হয় শিমুলের উপরে। মুখ ঢাকা দুজন দুষ্কৃতী শিমুলের উপরে হামলা চালায়। ঠিক তখনই সেখানে এন্ট্রি হয় হিরো থুড়ি পরাগের। হাতের লাঠি দিয়ে দুষ্কৃতীকে ধরাশায়ী করে ফেলে সে। নতুন পুলিশ অফিসারও এসে উপস্থিত হন সেখানে। কিন্তু কে ওই দুষ্কৃতী যে শিমুলকে আক্রমণ করে? সে কি পুরনো কোনো শত্রু? উত্তর মিলবে সিরিয়ালেই।

দর্শকরা জানেন, কিছুদিন আগেই এই সিরিয়ালে পা রেখেছে নতুন একটি চরিত্র পুলিশ অফিসার অনির্বাণ, যিনি বিপাশার কেসে সাহায্য করছেন। এই চরিত্রটি প্রথমে দর্শকরা ভেবেছিলেন সম্ভবত এই অনির্বাণ হয়তো শীর্ষার স্বামী, যিনি আদতে একজন খারাপ মানুষ। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, অনির্বাণ আসলেই একজন সৎ অফিসার। তবে পরাগকে ছাপিয়ে অনির্বাণই নতুন নায়ক হয়ে ওঠে কিনা সেটাই দেখার।

Avatar

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই