Hoop PlusTollywood

নির্বাচনের আগেই বিজেপিতে প্রাক্তন স্বামী সিদ্ধান্ত, প্রচারের ফাঁকে কী বললেন রচনা!

Advertisements

লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে রাজনীতির উত্তাপও তত বাড়ছে। তৃণমূল থেকে প্রথম বার ভোটে দাঁড়িয়েই জোর কদমে প্রচার শুরু করে দিয়েছেন রচনা বন্দ্যোপাধ্যায় (Rachna Banerjee)। রাজনীতিতে পা রেখেই তৃণমূলের টিকিটে হুগলী লোকসভা কেন্দ্র থেকে লড়াই করছেন তিনি। আপাতত প্রচারে ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। আর এর মাঝেই এল আরো এক চমকে দেওয়ার মতো খবর। বিজেপিতে যোগ দিলেন রচনার প্রাক্তন স্বামী সিদ্ধান্ত মহাপাত্র (Siddhanta Mahapatra)।

ওড়িয়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সুপারস্টার সিদ্ধান্ত মহাপাত্র অবশ্য রচনার মতো রাজনীতিতে নবাগত নন। দীর্ঘদিন ধরেই রাজনৈতিক জগতে রয়েছেন তিনি। তবে এতদিন তিনি ছিলেন ওড়িশার শাসক দল বিজেডিতে। ২০০৯ এবং ২০১৪ সালে পরপর দুবার দলের হয়ে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ২০১৯ সালে আর ভোটে দাঁড়ানোর টিকিট পাননি। আর এবার নির্বাচনের আগে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন সিদ্ধান্ত। গুঞ্জন বলছে, আসন্ন নির্বাচনে তিনি লড়তে পারেন বিজেপির হয়ে।

নির্বাচনের আগেই বিজেপিতে প্রাক্তন স্বামী সিদ্ধান্ত, প্রচারের ফাঁকে কী বললেন রচনা!

রচনা যখন তৃণমূলে, তখন প্রাক্তন স্বামী হাত মেলালেন বিরোধী দলের সঙ্গে। তবে এ বিষয়ে প্রশ্নের মুখে পড়ে পর্দার দিদি নাম্বার ওয়ান শুভেচ্ছাই জানিয়েছেন সিদ্ধান্তকে। যদিও রচনার কথায়, তিনি এখন হুগলী বাসীদের কথাই বলবেন। হুগলীর উন্নয়নই তাঁর লক্ষ্য। এছাড়া আর কে কী করছেন সেটা চিন্তা করার মতো সময় তাঁর কাছে নেই।

প্রসঙ্গত, রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম স্বামী হলেন সিদ্ধান্ত মহাপাত্র। ওড়িয়া ইন্ডাস্ট্রির সুপারস্টার অভিনেতা তিনি। অন্যদিকে কেরিয়ারের শুরুতে রচনাও অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন ওড়িয়া ছবিতে। সিদ্ধান্তের বিপরীতে অভিনয় করার সময়ই দুজনের প্রেম হয়। তারপর তাঁরা গোপনে বিয়ে করেছিলেন বলে শোনা যায়। কিন্তু ২০০৪ সালে বিয়ের পরে আবার বিচ্ছেদও রচনা সিদ্ধান্তের। কারণ হিসেবে শোনা যায়, অভিনেতার পরিবার রচনাকে মেনে নেয়নি। তারপরেই ওড়িশা ছেড়ে চলে আসেন অভিনেত্রী। দ্বিতীয় বার তাঁর বিয়ে হয় প্রবাল বসুর সঙ্গে। জন্ম হয় প্রণীল ওরফে রৌণকের। তবে এই বিয়েটাও টেকেনি। ছেলের মুখ চেয়ে বিবাহ বিচ্ছেদ না করলেও একসঙ্গে থাকেন না রচনা প্রবাল। ছেলে প্রণীল থাকেন রচনার কাছেই।

Nirajana Nag

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই