whatsapp channel

এয়ার হোস্টেসদের সাথে ঘনিষ্ঠতা,‌ করণের শোয়ে সইফের কুকীর্তি ফাঁস করলেন শর্মিলা ঠাকুর

সইফ আলি খান (Saif Ali Khan)-এর সাথে তাঁর প্রথম স্ত্রী অমৃতা সিং (Amrita Singh)-এর বিয়ে মেনে না নিলেও সইফের দ্বিতীয় স্ত্রী করিনা কাপুর খান (Kareena Kapoor Khan)-এর সাথে শর্মিলা ঠাকুর…

Avatar

Nilanjana Pande

সইফ আলি খান (Saif Ali Khan)-এর সাথে তাঁর প্রথম স্ত্রী অমৃতা সিং (Amrita Singh)-এর বিয়ে মেনে না নিলেও সইফের দ্বিতীয় স্ত্রী করিনা কাপুর খান (Kareena Kapoor Khan)-এর সাথে শর্মিলা ঠাকুর (Sharmila Tagore)-এর সম্পর্কের রসায়ন যথেষ্ট সুন্দর। সম্প্রতি ‘কফি উইথ করণ’-এ অতিথি হয়ে এসেছিলেন শর্মিলা ও সইফ। করণ জোহর (Karan Johar) সঞ্চালনার তুলনায় বেশি আগ্রহী থাকেন তারকাদের অন্দরের খবর নিয়ে। কারণ তিনি ‘ট্রিকি’। ‘কফি উইথ করণ’-এর উপহারের ডালি যত সুন্দর, তার তুলনায় বেশি কঠিন করণের প্রশ্নের তালিকা। বারবার তা এড়াতে চাইলেও তারকাদের পক্ষে সম্ভব হয় না। কিন্তু এবার শর্মিলার সামনেই তাঁর পুত্র সইফকে অদ্ভুত প্রশ্ন করলেন করণ।

ইতিমধ্যেই সেই পর্বের প্রোমো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে করণের ইন্সটাগ্রাম হ্যান্ডল থেকে। সইফ এর আগে একাধিক বার ‘কফি উইথ করণ’-এ এলেও শর্মিলার আগমন প্রথমবার। সইফের মুখ থেকে জানা গেল, শোয়ের সেটেই মায়ের কাছে তিরস্কৃত হয়েছেন তিনি এবং তাও শো শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ আগে। প্রোমোতে দেখা গিয়েছে, শর্মিলা তাঁর পুত্রকে নিয়ে একের পর এক মন্তব্য করছেন। করণও যথেষ্ট আগ্রহী মা-ছেলের রসায়ন জানতে। কিন্তু সইফ বললেন, শর্মিলা সব কথাই অতিরঞ্জিত করছেন। একসময় লন্ডন স্কুল অফ মিউজিক-এ পড়তে গিয়েছিলেন সইফ। পতৌদি পরিবারের নিয়ম অনুযায়ী ইংল্যান্ডে পড়তে যেতে হলেও মিউজিকের প্রতি সইফের আগ্রহের কারণে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি।

শর্মিলা জানালেন, সইফ পড়াশোনার পরিবর্তে এয়ার হোস্টেসদের সাথে সময় কাটাতেন। মায়ের এই কথা মানতে চাইলেন না বর্তমান নবাব পতৌদি। তিনি মাকে থামাতে গেলেও করণ তা করতে দিলেন না। তবে শর্মিলার সামনেই করণ সইফকে জিজ্ঞাসা করলেন করিনার সাথে তাঁর খুনসুটির কথা। সইফ কপট রাগ দেখিয়ে বলেন, তাঁর মা সামনে রয়েছেন। শর্মিলা অবশ্য হেসে ফেলেন ছেলের কথা শুনে।

তবে র‌্যাপিড ফায়ারে বর্ষীয়ান অভিনেত্রী কি বলেছেন তা এখনও ফাঁস করেননি করণ। তবে মা গিফট হ্যাম্পার জিতলে তা সইফের ভাগ্যেই জুটবে তা তো জানা কথাই।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Karan Johar (@karanjohar)