whatsapp channel

গৌরীকে গুলি করে মারার চেষ্টা শৈলজার!

জি বাংলার ধারাবাহিক ‘গৌরী এলো’ একসময় বেঙ্গল টপার ছিল। লাগাতার টিআরপি চার্টের শীর্ষে থাকা সত্ত্বেও এই ধারাবাহিকের স্লট পরিবর্তন করার ফলে আচমকাই নেমে যায় টিআরপি। ফলে ‘গৌরী এলো’-র অবস্থা বর্তমানে…

Avatar

Nilanjana Pande

জি বাংলার ধারাবাহিক ‘গৌরী এলো’ একসময় বেঙ্গল টপার ছিল। লাগাতার টিআরপি চার্টের শীর্ষে থাকা সত্ত্বেও এই ধারাবাহিকের স্লট পরিবর্তন করার ফলে আচমকাই নেমে যায় টিআরপি। ফলে ‘গৌরী এলো’-র অবস্থা বর্তমানে তথৈবচ। ধারাবাহিকের পরিচালক জানিয়েছেন, প্রযোজনা সংস্থা ও চ্যানেল কর্তৃপক্ষের যৌথ সিদ্ধান্তে ‘গৌরী এলো’-র স্লট পরিবর্তন হয়েছে। এই ধারাবাহিকটি প্রযোজনা করছেন স্বর্ণেন্দু সমাদ্দার (Swarnendu Samaddar)। শোনা যাচ্ছে, পুজোর আগেই অফ এয়ার হতে পারে ‘গৌরী এলো’। জল্পনা উস্কে দিয়ে এবার সামনে এল ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো।

শৈলজার বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়িয়েছে গৌরী। এর আগে ধারাবাহিকে দেখানো হয়েছে শৈলজা জন্মাষ্টমীর দিন কাঁটায় বিদ্ধ করে গৌরীকে মারার ষড়যন্ত্র করেও অসফল হয়। কিন্তু ধারাবাহিকের নতুন প্রোমোয় আরও এক নতুন মোচড়। শৈলজা রাজনীতির ময়দানে হেরে যায় গৌরীর কাছে। জনগণের ধাক্কায় পড়ে যায় সে। কাদা ছিটকে লাগে তার চোখে-মুখে। অপরদিকে গৌরী উঠে দাঁড়ায় মঞ্চে। সে জনগণকে প্রতিশ্রুতি দেয়, যতদিন প্রাণ থাকবে, গৌরী ততদিন মানুষের পাশে থাকবে। কিন্তু শৈলজা তা সহ্য করতে পারে না। শেষ হাসি হাসার প্রতিজ্ঞা করে সে।

শৈলজা বক্রোক্তি করে, যদি গৌরীর প্রাণ না থাকে! অপরদিকে গৌরী যখন মঞ্চের উপর বক্তৃতা দিতে ব্যস্ত, তাকে লক্ষ্য করে শৈলজার ভাড়া করা শার্প শুটার গুলি চালায়। গৌরীর বুকে গুলি এসে লাগে। মঞ্চের উপরেই লুটিয়ে পড়ে সে। ছুটে আসে গৌরীর কর্মী-সমর্থকদের দল। অনেকে অবশ্য এই প্রোমো দেখার পর কটাক্ষ করে লিখেছেন, আর কতবার মরবে গৌরী! অনেকে ‘গৌরী এলো’-র পরিবর্তে চ্যানেলকে একটি ধর্মীয় ধারাবাহিক সম্প্রচারের অনুরোধ জানিয়েছেন।

গৌরীকে হত্যা করতে কি সফল হবে শৈলজা? এই প্রশ্নের উত্তর মিলবে ধারাবাহিকের আগামী পর্বগুলিতে।