Hoop Fitness

থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগছেন? বাড়াবাড়ি হওয়ার আগে বাদ দিন এইসব খাবার

Advertisements

থাইরয়েডের সমস্যা (Thyroid Problem) নতুন নয়। বর্তমানে থাইরয়েড আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে অনেক গুণে। ঘাড়ে যে প্রজাপতি আকৃতির গ্রন্থি রয়েছে সেটাই থাইরয়েড গ্রন্থি। এই গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত হয় থাইরয়েড হরমোন, যা মানুষের বৃদ্ধি বিকাশ সহ বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় এবং বিপাকীয় কাজে সহায়তা করে। এই থাইরয়েড হরমোন ক্ষরণে তারতম্য দেখা দিলেই শুরু হয় সমস্যা। থাইরয়েডের সমস্যা দেখা দিলে একাধিক উপসর্গ দেখা যায়।

হঠাৎ করেই ওজন কমে যাওয়া বা বেড়ে যাওয়া, সামান্য পরিশ্রমেই হাঁপিয়ে যাওয়া বা ক্লান্তি বোধ করা, রাতে ঘুম না আসা, আবার সকালে ঘুম ভাঙতে সমস্যা, হঠাৎ করেই প্রচণ্ড ঘাম হওয়া, মহিলাদের ঋতুচক্রে সমস্যা হতে পারে থাইরয়েডের উপসর্গ। তখন থাইরয়েড পরীক্ষা করিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ মতো ওষুধ খেতে হয়। কিন্তু জানেন কি, থাইরয়েডের ওষুধ খেলে কিছু কিছু খাবার এড়িয়ে চলাই শ্রেয়। চিকিৎসকরাও নিষেধ করেন থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে কিছু খাবার না খেতে।

থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগছেন? বাড়াবাড়ি হওয়ার আগে বাদ দিন এইসব খাবার

কপি জাতীয় যে কোনো সবজি যেমন ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকোলি খাওয়া উচিত নয়। সর্ষে, মুলো, রাঙা আলু, শালগম, চিনে বাদামও খেতে বারণ করা হয় থাইরয়েডের সমস্যায়। কিছু সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে, সয়া জাতীয় কোনো খাবার যেমন সয়াবিন, সয়া মিল্ক, টোফুর মতো খাবার খেলে থাইরয়েডের ওষুধ ঠিক ভাবে কাজ করে না। যারা থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগছেন তাদের অতিরিক্ত ক্যাফেইন এড়িয়ে চলা উচিত।

থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগছেন? বাড়াবাড়ি হওয়ার আগে বাদ দিন এইসব খাবার

অতিরিক্ত মিষ্টি এড়িয়ে চলা উচিত থাইরয়েড আক্রান্তদের। চিনির বদলে গুড় বা মধু ব্যবহার করা যেতে পারে রান্নায়। পাশাপাশি দুগ্ধজাত খাবারে শরীরে হরমোনের তারতম্য বাড়ে। তাই এই ধরণের খাবার কম খাওয়া গেলেই ভালো। রান্না করা গাজর, শুকনো ফল, পাকা কলা, ভাত, ময়দার রুটি, আলু, সাদা পোস্ত কার্বোহাইড্রেটের মাত্রা বাড়ায় শরীরে। থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে এগুলিও কম খেতে বলা হয়। প্যাকেটজাত খাবার যেমন সসেজ, স্যালামিতে তেল, চিনি, নুন অতিরিক্ত থাকে। তাই এই সমস্ত খাবারও কম খাওয়াই ভালো।

Nirajana Nag

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই