whatsapp channel

যৌন সঙ্গমে বাঁধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে ব্যথা! জেনে নিন এর প্রতিকার

দুজন মানুষকে একসঙ্গে বেঁধে রাখতে গেলে যৌনসঙ্গম একান্ত প্রয়োজনীয়। কিন্তু অনেক সময় নারীদের যৌনাঙ্গে ব্যথা অনুভূত হওয়ায় পুরুষ সঙ্গীটিকে যৌনসঙ্গম থেকে বিরত থাকতে হয়। যৌনসঙ্গম করতে গিয়ে ব্যথা হাওয়া খুব…

Avatar

HoopHaap Digital Media

দুজন মানুষকে একসঙ্গে বেঁধে রাখতে গেলে যৌনসঙ্গম একান্ত প্রয়োজনীয়। কিন্তু অনেক সময় নারীদের যৌনাঙ্গে ব্যথা অনুভূত হওয়ায় পুরুষ সঙ্গীটিকে যৌনসঙ্গম থেকে বিরত থাকতে হয়। যৌনসঙ্গম করতে গিয়ে ব্যথা হাওয়া খুব স্বাভাবিকভাবে। বিশেষত প্রথমবার মিলনের পরে ব্যথা বোধ হওয়াটাই স্বাভাবিক।

এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলেন, ইন্টারকোর্সের আগে ফোরপ্লে খুব উপকারি একটি ঘটনা। ‘ফোরপ্লে’ কথাটির অর্থ হলো ইন্টারকোর্সের আগে ‘আদর’। এই আদর স্বাভাবিক আদর নয়, ইন্টারকোর্সের আগে নারীর শরীরে যৌন আদরে ভরিয়ে দিতে হবে। তবেই যৌনাঙ্গ যথাযথ পিচ্ছিল এবং উত্তেজিত হবে। তাতে ইন্টারকোর্স অনেক বেশি সহজ হবে। ব্যাথাও কম হবে।

সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হলো ইন্টারকোর্স করার আগে পুরুষের যৌনাঙ্গে অথবা নারীর যৌন পথে সামান্য লুব্রিক্যান্ট জেল লাগাতে পারেন। পলিসিসটিক ওভারি থাকলে অনেক সময় যৌনাঙ্গে ব্যথা হতে পারে। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। প্রতিদিন ১০ মিনিট বাবু হয়ে বসে পায়ের পাতা দুটিকে একসঙ্গে করে গোড়ালি থেকে যতটা পারেন যৌনাঙ্গের মধ্যে প্রবেশ করিয়ে হাঁটু দুটোকে প্রজাতির মত নাড়াতে হবে। একে বলা হয় ‘বাটারফ্লাই’। এতে প্রতিদিন নিয়ম করে করতে পারলে যৌনাঙ্গ অনেক বেশি ফ্লেক্সবেল হবে।

যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করার সময় কখনোই ভুল করে সাবান বা কোনরকম ওয়াশ ব্যবহার করবেন না। প্রয়োজনে পরিষ্কার করার জন্য ডিসটিল্ড ওয়াটার ব্যবহার করতে পারে। না হলে জল বেশিক্ষণ ধরে ফুটিয়ে সেই ফোটানো জল ব্যবহার করুন। ইন্টারকোর্সের পর যদি ব্যথা হয় তাহলে অবশ্যই গরম জলের সেঁক দিতে পারেন। অথবা হট ওয়াটার ব্যাগ যৌনাঙ্গে কিছুক্ষণ চেপে ধরে রাখতে পারেন। যদি জ্বালা অনুভব হয় তাহলে অবশ্যই বরফের টুকরো ঘষতে পারেন। নিয়মিত ব্যায়াম, প্রাণায়াম এই সমস্ত করতে পারলেই বডি অনেক বেশি ফ্লেক্সিবেল হবে। সে ক্ষেত্রে স্বামী মানুষটির কাছে আপনি অনেক বেশী আকর্ষনীয় হয়ে উঠতে পারেন। সেক্ষেত্রে ইন্টারকোর্সের জন্য স্বাভাবিকভাবেই উত্তেজনা তৈরী হবে। তবে ইন্টারকোর্সের সময় ব্যথা অনুভব করলে অপরদিকে মানুষটিকে বলতে ভুলবেন না। সুস্থ স্বাভাবিক জীবন যাপন করুন। এইসব বিষয় নিয়ে খোলাখুলি আলোচনা করুন। খুব বেশি ব্যথা অনুভূত হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

Avatar

Leave a Comment