whatsapp channel

Lifestyle: চিনি হইতে সাবধান! পুজোর আগেই শুরু করুন সু-অভ্যাস

চায়ে চিনি, পায়েসে চিনি, কেক, দই, রসগোল্লা, এমনকি তরকারিতে পর্যন্ত চলে মিষ্টি। আর এই মিষ্টির উৎস হল চিনি। কিন্তু, জানেন কি এই চিনি কতটা ক্ষতিকর শরীরের জন্য? আখের রস থেকে…

Avatar

Susmita Kundu

চায়ে চিনি, পায়েসে চিনি, কেক, দই, রসগোল্লা, এমনকি তরকারিতে পর্যন্ত চলে মিষ্টি। আর এই মিষ্টির উৎস হল চিনি। কিন্তু, জানেন কি এই চিনি কতটা ক্ষতিকর শরীরের জন্য? আখের রস থেকে তৈরি চিনি খেতে মজা হলেও শরীরকে সাজা দিয়েই শেষ করে।

যারা ডায়াবেটিস এর রুগী তারা হয়তো চিনি খান না, কিন্তু যাদের সুগার লেভেল ব্যালান্সড তারা দেদার চিনি জাতীয় খাবার খান। বিশেষত আসছে পুজোর মরশুম, মানুষ ইতিমধ্যে নানান স্বাদের মিষ্টি খাবার বানানো, কেনা ও খাওয়া শুরু করে দিয়েছে। গণেশ পুজো থেকেই পুজোর মুহূর্ত শুরু, তাই মিষ্টি পর্ব তখন থেকেই শুরু হয়ে যায়। কিন্তু, বেশি মিষ্টি খেলে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে জানেন কি?

গবেষণা বলছে অত্যধিক চিনি জাতীয় খাবার খেলে প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এমনকি যাদের গেটে বাত আছে তাদেরও ব্যথা বেদনা বেড়ে যায় মিষ্টি থেকে। কারণ, চিনিতে রয়েছে ইউরিক অ্যাসিড, এবং, এটি যে কোন ধরণের বাতের ব্যথা বাড়িয়ে দিতে পারে।

এছাড়া, যাদের কিডনি সমস্যা আছে, তাদের মিষ্টি এড়িয়ে চলা উচিত। অত্যধিক মিষ্টি বা দৈনন্দিন জীবনে স্বল্পতম মিষ্টি কিডনির উপর কুপ্রভাব ফেলে। তাহলে কি খাবেন?

অনেকেই চিনির বদলে কৃত্রিম চিনি খান, যাকে সুগার ফ্রি ট্যাবলেট বলে। কিন্তু, জানেন কি এই কৃত্রিম মিষ্টি হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে। এমনকি এই কৃত্রিম চিনির মধ্যে থাকে বিভিন্ন রাসায়নিক যৌগ, যেইগুলো ইনসুলিন হরমোনের কার্যকারিতা নষ্ট করে দেয়। তাই আখের রসের তৈরি চিনি যেমন নয়, তেমন কৃত্রিম চিনিও নয়।