Finance News

DA: বিধানসভায় হট্টগোলের পরেই নেওয়া হবে বড় সিদ্ধান্ত! ২০২৪-এর শুরুতেই বেতন বাড়াচ্ছে রাজ্য

বছরের শুরুতেই খুশির জোয়ারে ভেসেছিলেন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা। জানুয়ারিতেই কেন্দ্র সরকারের কর্মীদের মহার্ঘভাতা একলাফে বেড়েছিল ৪ শতাংশ হারে। ফলে একলাফে ৩৮ শতাংশ থেকে বেড়ে সেটি হয়েছিল ৪২ শতাংশ। আর তারপর থেকেই বছরের দ্বিতীয় মহার্ঘভাতা বৃদ্ধি পায় অক্টোবরে। সেবার ফের ৩ শতাংশ হারে ডিএ বাড়ানো হয়। ফলে এখন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের মহার্ঘভাতার পরিমান হয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৫ শতাংশ। আর এই বর্ধিত হারে ডিএ দেওয়া হচ্ছে গত জুলাই থেকেই।

সম্প্রতি, মধ্যপ্রদেশ, ওড়িশা, ঝাড়খণ্ড সহ বেশ কয়েকটি রাজ্য সরকার তাদের রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য মহার্ঘ ভাতা বাড়িয়েছে। যার ফলে খুশির জোয়ার এসেছে সেইসব রাজ্যের সরকারি কর্মীদের মধ্যে। তবে এবার কর্ণাটক রাজ্যের সরকারি কর্মীদের ডিএ বৃদ্ধির নিয়ে ব্যাপক হট্টগোল শুরু হল সেই রাজ্যের বিধানসভায়। শীতকালীন অধিবেশন শুরু হতেই এই বিষয়টি নিয়ে সরকার ও বিরোধী পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। গতকাল সেই ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী তথা সেই রাজ্যের অর্থমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বলেন, আপাতত সরকারি নির্দেশে কমিশনের মেয়াদ বৃদ্ধি হয়েছে। মেয়াদ শেষে কমিশন রিপোর্ট পেশ করলে তা খতিয়ে দেখে সরকারি কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, সেই রাজ্যে সপ্টপম বেতন কমিশন চালুর দাবি ছিল দীর্ঘদিনের। গত বছরে সপ্তম বেতন কমিশনের দাবিতে সরকারের ওপরে চাপ বাড়িয়েছিলেন কর্ণাটকের সরকারি কর্মীরা। তবে ভোটের আগে তাদের খুশি করতে এই বিষয়ে তাদের আশ্বস্ত করেছিলেন তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু ভোটে তিনি হেরে যান। এদিকে ভোটে জিতে ক্ষমতায় আসে কিংরেসের সিদ্দারামাইয়া সরকার। তারপরেই তাদের দেওয়া পাঁচ প্রতিশ্রুতিকে পূরণ করতে লাগাতার চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার। তবে এখনো সেই বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি কর্ণাটকের সরকার।

জানা গেছে, এই বছর নয়, আগামী বছরের শুরুতে সপ্তম বেতন কমিশন চালু হতে চলেছে কর্ণাটকে। আর এই খবর যে কর্ণাটকে সুখবর বয়ে আনবে, তাতে সন্দেহ নেই। তবে জানা গেছে, এখন যে বেতন কমিশনের আওতায় বেতন পাচ্ছেন সেই রাজ্যের সরকারি কর্মীরা, তা চলবে ২০২৪ সালের মার্চ মাস অবধি। তারপরেই সেই রাজ্যে চালু হবে সপ্তম বেতন কমিশন। তবে এই আশ্বাস দেওয়া হলেও বছর শেষের মুখে কোনো ঘোষণা করেনি রাজ্য সরকার।