Trending

Video

Shorts

whatsapp [#128] Created with Sketch.

Join

Follow

 
Advertisements

Income Tax: এই কাজটি না করলেই গুনতে হবে ১০ হাজার টাকার জরিমানা

Debaprasad Mukherjee

Debaprasad Mukherjee

Follow
Advertisements

২০২৩-২৪ অর্থবর্ষের জন্য কোটি কোটি মানুষ আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন। আয়কর রিটার্ন দাখিল করার সময় প্রতিটি করদাতাকে আপনার উপার্জন প্রকাশ করতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে, ITR পূরণ করার সময় করদাতাদের খুব সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। কারণ করদাতারা বিভিন্ন কারণে আয়কর বিভাগ থেকে নোটিশও পেতে পারে। আপনি যদি আইটিআর ফাইল করার সময় আয়কর বিভাগকে সমস্ত সঠিক তথ্য দিয়ে থাকেন তবে চিন্তা করার দরকার নেই। তবে আপনি যদি তা না করে থাকেন তবে আপনি আয়কর বিভাগ থেকে একটি নোটিশ পেতে পারেন।

একজন করদাতা যিনি আয়কর আইনের ধারা 139 বা 142(1) এর অধীনে তার রিটার্ন দাখিল করেছেন, তাহলে তাকে 143(1) ধারার অধীনে একটি নোটিশ জারি করা হতে পারে যেটি আয়ের রিটার্ন গ্রহণ করার জন্য ব্যবহৃত হয়। সেখানে কোনো অমিল পাওয়া গেলে নোটিশ জারি করা যেতে পারে। এর মধ্যে ট্যাক্স রিটার্নে কোনো গাণিতিক ত্রুটি, ডিডাকশনের ভুল দাবি, ছাড়, ভাতা ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এছাড়াও ফর্ম 26AS বা ফর্ম 16A/ফর্ম 16-এ উপস্থিত অতিরিক্ত আয় গণনা ট্যাক্স এই বিভাগের অধীনে আসে। এক্ষেত্রে অমিল হলেও নোটিস আসতে পারে। এছাড়াও সাধারণ ক্ষেত্রে আয়কর জমা না দিলে এই দুই ধারার অধীনে জরিমানা দিতে হয় করদাতাদের।

◆ ধারা 234F:- এই ধারার অধীনে করদাতাকে ৫ হাজার টাকার বিলম্বিত ফি দিতে হবে। কোনো করদাতা যদি মূল্যায়ন বছরের ৩১ শে ডিসেম্বরের মধ্যে রিটার্ন দাখিল না করে বা তাহলে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। তবে, যদি তার মোট আয় ৫ লক্ষ টাকার কম হয় তাহলে মোট বিলম্ব ফি হবে ১ হাজার টাকা।

◆ ধারা 234A:- করদাতাকে এই আইনের ধারার অধীনে সুদও দিতে হবে যা প্রতি মাসে ১% হবে বা রিটার্ন দাখিলের নির্ধারিত তারিখ থেকে আইটিআর ফাইলিংয়ের প্রকৃত তারিখ পর্যন্ত মাসের অংশ হবে৷

Debaprasad Mukherjee
Debaprasad Mukherjee

Hoophaap-এর সম্পাদক দেবপ্রসাদ বিগত কয়েক বছর যাবৎ সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ার হাত ধরে...