Trending

Video

Shorts

whatsapp [#128] Created with Sketch.

Join

Follow

 
Advertisements

ছোট বয়সে হারান বাবাকে, মায়ের জন্যই অভিনয়ে আসা, মুখ খুললেন ‘অষ্টমী’ ঋতব্রতা

Nirajana Nag

Nirajana Nag

Follow
Advertisements

সোমবার, ৮ এপ্রিল থেকে পথচলা শুরু হচ্ছে ‘অষ্টমী’র (Ashtami)। জি বাংলার এই নতুন ধারাবাহিকটিও অতিলৌকিক বিষয়বস্তু নিয়ে তৈরি। এই সিরিয়ালে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন ঋতব্রতা দে (Ritobrota Dey)। নবগ্রামে শিক্ষিকা হয়ে আসা অষ্টমী রুখে দাঁড়ায় কুসংস্কার, ভণ্ডামির বিরুদ্ধে। জমিদার পুরুষোত্তম সিংহের বিরুদ্ধে তার প্রতিবাদ আঘাত হানে তার উপরেই। জমিদারের ষড়যন্ত্রে নিজের চোখ হারিয়ে বসে অষ্টমী। তবে বউ রানীর আশীর্বাদে তার অন্য ইন্দ্রিয়গুলি প্রখর হয়ে ওঠে।

এই প্রথম জি বাংলার কোনো সিরিয়াল অভিনয় করছেন ঋতব্রতা। সম্প্রতি অষ্টমীর টিম এসেছিল দিদি নাম্বার ওয়ানে। সেখানেই ঋতব্রতা বলেন, তিনি কোনওদিন ভাবেননি যে অভিনয়ে আসবেন। মায়ের জন্যই সম্ভব হয়েছে এটা। ঋতব্রতা জানান, খুব ছোট বেলায় বাবাকে হারিয়েছিলেন তিনি। ২০০৫ সালে প্রয়াত হন তাঁর বাবা। মা একাই বড় করেছেন তাঁকে। প্রচণ্ড লড়াই করতে হয়েছে তাঁকে। তাই ঋতব্রতার একটাই লক্ষ্য ছিল, মাকে ভালো রাখতে হবে।

সব খবর মোবাইলে পেতে 👉🏻

Join Now
ছোট বয়সে হারান বাবাকে, মায়ের জন্যই অভিনয়ে আসা, মুখ খুললেন 'অষ্টমী' ঋতব্রতা

অভিনেত্রী বলেন, তিনি ভেবেছিলেন ভালো করে পড়াশোনা করে একটি ভালো চাকরি করবেন। কিছু না জেনেই প্রথম অডিশন দিয়েছিলেন। তারপর কিছু টুকটাক কাজ করার পর এখন অষ্টমীর সুযোগ আসে তাঁর কাছে। এদিন দিদি নাম্বার ওয়ানের মঞ্চে সহ অভিনেত্রীর গোপন খবরও ফাঁস করে দেন ঋতব্রতা। শিঞ্জিনী নাকি যখন তখন ঘুমিয়ে পড়তে পারেন। প্রিয়াঙ্কা মিত্র নাকি চোখ খুলে ঘুমান। আর প্রিয়ম চক্রবর্তী সুযোগ পেলেই ভ্লগ করতে শুরু করে দেন।

প্রসঙ্গত, অষ্টমী সিরিয়ালে ঋতব্রতার বিপরীতে দেখা যাবে সপ্তর্ষি মৌলিককে। সপ্তর্ষির সঙ্গে ঋতব্রতা ওরফে অষ্টমীর প্রেমের কাহিনি কীভাবে শুরু হবে, পুরুষোত্তম সিংহ ঠাকুরের সঙ্গে অষ্টমীর মুখোমুখি লড়াই দেখার জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন দর্শকরা। সোমবার থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ছটায় জি বাংলায় পথচলা শুরু করছে অষ্টমী। আর ‘কার কাছে কই মনের কথা’কে পাঠানো হচ্ছে রাত সাড়ে নটার স্লটে। সেই জায়গায় ‘মিঠিঝোরা’ যাচ্ছে রাত দশটায়।

Nirajana Nag
Nirajana Nag

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখা...