Hoop PlusHoop Sports

সৌন্দর্যে টেক্কা দেবেন যেকোনো অভিনেত্রীকে, বিরাট কোহলির রূপসী বৌদিকে চেনেন!

Advertisements

ক্রিকেট দুনিয়ার সব থেকে জনপ্রিয় তারকাদের তালিকা তৈরি হলে বিরাট কোহলির (Virat Kohli) নাম থাকবে প্রথম দিকেই। ভারত সহ সমগ্র বিশ্বেই কোহলির জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। ক্রিকেট বিশ্বে প্রবীণ তারকাদের সঙ্গে নিজের যোগ্যতায় এক সারিতে উঠে এসেছেন তিনি। শুধু ক্রিকেটের বাইশ গজ নয়, সোশ্যাল মিডিয়াতেও তাঁর খ্যাতি দেখার মতো। তাবড় তাবড় তারকাদের পেছনে ফেলে দিতে পারেন তিনি জনপ্রিয়তার নিরিখে। এহেন কোহলির ব্যক্তিগত জীবনের প্রতিও মানুষের কৌতূহল কম নেই।

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী অনুষ্কা শর্মাকে বিয়ে করেন তিনি ২০১৭ সালে। ২০২১ সালে জন্ম হয় তাঁদের প্রথম সন্তান ভামিকার। আর ২০২৪ এর শুরুতে দ্বিতীয় সন্তান অকায় আসে বিরুষ্কার পরিবারে। দুই ছেলে মেয়েকে নিয়ে বেশ সুখের সংসার বিরাট অনুষ্কার। স্ত্রী অনুষ্কা এখন সিনেমার সংখ্যা কমিয়ে দিলেও গ্ল্যামারে অনেক অভিনেত্রীকেই টেক্কা দিতে পারেন তিনি। তবে জানলে অবাক হবেন, কোহলি পরিবারে অনুষ্কাই কিন্তু একমাত্র রূপসী নন। ক্রিকেট তারকার বৌদিও কম যান না কোনো অংশে।

সৌন্দর্যে টেক্কা দেবেন যেকোনো অভিনেত্রীকে, বিরাট কোহলির রূপসী বৌদিকে চেনেন!

সকলেই জানেন, বিরাটের এক বড় দাদা রয়েছেন, যাঁর নাম বিকাশ কোহলি। তাঁর স্ত্রী চেতনা কোহলির কথাই বলা হচ্ছে। সম্পর্কে তিনি বিরাটের বৌদি হন। কিন্তু অনেকের মতে, সৌন্দর্যে বিরাট পত্নী অনুষ্কা শর্মাকেও ছাপিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রাখেন চেতনা কোহলি। বিরাটের মতোই তাঁর দাদাও প্রায়ই উঠে আসেন সংবাদ শিরোনামে। পাশাপাশি স্ত্রী চেতনাও বেশ সক্রিয় থাকেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। নিজের সুন্দর সুন্দর ছবি শেয়ার করে মাঝে মধ্যেই চর্চার কেন্দ্রে চলে আসেন তিনি।

২০১৫ সালে বিয়ে হয় বিকাশ এবং চেতনার। বর্তমানে তাঁরা আলাদা থাকলেও মাঝে মাঝেই বিরাট অনুষ্কার সঙ্গে দেখা করতে আসেন তাঁরা। পাপারাৎজির ক্যামেরায় বহুবার ধরা পড়েছেন চেতনা কোহলি। তাঁর সেসব ছবি, ভিডিও ভাইরাল হতে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অনেকে। বিরাট অনুষ্কার বিয়ের সময়ও উপস্থিত ছিলেন তাঁর দাদা বৌদি বিকাশ এবং চেতনা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Chetna Kohli (@_chetnakohli)

Nirajana Nag

আমি নীরাজনা নাগ। HoopHaap-এর একজন সাংবাদিক। বিগত চার বছর ধরে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। নিজের লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিতে চাই